Support 4thPillars

×
  • আমরা
  • নজরে
  • ছবি
  • ভিডিও
  • Video-4thpillars
    বাংলায় ত্রিমুখী লড়াই (পর্ব 2)

    বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ মোর্চার রবিবারের ব্রিগেডের বিপুল জন সমাবেশ ভোটে কি দাগ কাটতে পারবে? বাংলার লড়াই কি এবার ত্রিমুখী? সাংবাদিক নির্মাল্য মুখোপাধ্যায়, অর্থনীতিবিদ শুভনীল চৌধুরীর সঙ্গে ঈলোচনায় সুদীপ্ত সেনগুপ্ত

    বাংলায় ত্রিমুখী লড়াই

    রবিবার বাম-কংগ্রেস-আই.এস.এফ জোটের বিগ্রেড সমাবেশ কি আসন্ন বিধানসভা ভোটে ত্রিমুখী লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিল? বিপুল জন সমাবেশে কার ভাগ কতটা, ভোটে কতটা প্রভাবের সম্ভাবনা? 4th Pillars এর আলোচনায় রাষ্ট্রবিজ্ঞানী উদয়ন বন্দ্যোপাধ্যায়, সাংবাদিক রজত রায়ের সঙ্গে সুদীপ্ত সেনগুপ্ত

    ধর্ষণের অপরাধ বিয়েতে মকুব?

    নাবালিকা ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্তকে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রশ্ন, ধর্ষিতাকে বিয়ে করতে রাজি কিনা। ধর্ষণের অপরাধ কি বিয়েতে মকুব হয়ে যায়? দিল্লির উপান্তে আন্দোলনকারী কৃষকদের সমাবেশে মহিলাদের কেন "রাখা হয়েছে" প্রশ্ন ছিল এই বিচারপতির‌ই। মহিলারা স্বেচ্ছায় থাকেন না, তাঁদের রাখা হয় - এই ভাবনা থেকে কি আমরা বেরোতে পারিনি এখন‌ও?

    স্রোতের বিপরীতে হেঁটে ক্যাডবেরির নজির স্থাপন

    যা সংখ্যাগুরু তাই ঠিক, বাকিটা ভুল, এমনটা যে নয় তা ক্যাডবেরি যেন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল। স্রোতের বিরুদ্ধে গিয়ে নজির স্থাপন করল ক্যাডবেরি তাদের নতুন প্রোডাক্টের বিজ্ঞাপনে সমকামিতার ইঙ্গিত দিয়ে। কোনও চাপের সামনে মাথা নিচু না করে, তারা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে সমকামিতা বেআইনি কিছু না, যা সমাজে রয়েছে, আইনসম্মত, সংবিধান অনুমোদিত তাকে এবার গ্রহণ করতে হবে - পছন্দ হোক বা না হোক।

    পাখির চোখ বাংলা

    বঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের মুখে রাজ্যপালের মুখে পরিবর্তনের ডাক, অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী জানালেন ভোটের সম্ভাব্য দিনক্ষণ! সাংবিধানিক শিষ্টাচার কি সব শিকেয় উঠল?

    দিশা রাভির জামিনের নির্দেশ বিচার ব্যবস্থা ও গণতন্ত্রের প্রতি মানুষের আস্থা ফেরাবে

    দিল্লি দায়রা আদালতের থেকে জামিন পেলেন 22 বছরের পরিবেশ স্বেচ্ছাসেবী দিশা রাভি। আদালত স্পষ্ট বলল সরকারের বিরুদ্ধে মত পোষণ গণতন্ত্রে নাগরিকের অধিকার। নাগরিক রাষ্ট্রের বিবেকের কাজ করে। শাসকের অহংকে তৃপ্ত করার জন্য দেশদ্রোহের আইনের অপব্যবহার করা যায় না। এমনকি মতপ্রকাশের ও বাকস্বাধীনতার অধিকারের মধ্যে সারা বিশ্বের মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা‌ও পড়ে।

    স্থগিত কৃষি আইন

    সুপ্রিম কোর্টে ধাক্কা নরেন্দ্র মোদী সরকারের? নাকি সরকারের মুখরক্ষা শীর্ষ আদালতের হস্তক্ষেপে? স্থগিত হল বিতর্কিত কৃষি আইনগুলি। এবার কী? আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য, প্রবন্ধকার রঞ্জন রায় এবং সাংবাদিক রজত রায়ের সঙ্গে আলোচনায় সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    সুপ্রিম কোর্টের অবস্থান কৃষক আন্দোলনের সমাধানের একটা পথ খুলে দিল

    গত দেড় মাস ধরে কৃষকরা যেভাবে কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলন চালাচ্ছে এবং সরকারও তা প্রত্যাহার করবে না বলে অনড় রয়েছে, সেখানে গতকাল প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের অবস্থানে নাগরিকরা খানিক আশ্বস্ত হতে পারেন। কিন্তু কৃষকদের স্বার্থে যেভাবে সংবিধানের 21 নম্বর অনুচ্ছেদের কথা সুপ্রিম কোর্ট উল্লেখ করল তা সম্প্রতিকালে সমতুল্য বহু মামলায় করা হয়নি। সরকার পক্ষ কি সুপ্রিম কোর্টের করে দেওয়া এই সুযোগকে ব্যবহার করে, কৃষকদের কথা ভেবে স্থগিত রাখবে এই বিতর্কিত কৃষি আইনগুলোকে?

    ট্রাম্পের শেষ প্রহর

    কলঙ্কিত গণতন্ত্র। 'শয়তান শাসকের' আগ্রাসনে বিক্ষোভের আগুন ক্যাপিটলে। ইন্ধন দিলেন খোদ বিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প! কোন পথে এগোচ্ছে আমেরিকার রাজনীতি? আলোচনায় সাংবাদিক রজত রায়, প্রণয় শর্মা এবং সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    কোভিড ভ্যাকসিন

    অনেক প্রশ্নের জবাব না থাকা সত্ত্বেও নতুন বছরের শুরুতেই কোভিড ভ্যাকসিনে ছাড়পত্র। কেন এত তাড়াহুড়ো? বিশ্বের কাছে জাহির করা, আমাদের দেশেও ভ্যাকসিন তৈরি হয়ে গিয়েছে, এটা দেখানোই কি উদ্দেশ্য? সবিস্তারে আলোচনায় চিকিৎসক কৌশিক মজুমদার, জীববিজ্ঞানী সমীর চট্টোপাধ্যায়, জৈবরসায়নবিদ সুস্মিতা ঘোষ এবং সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    রাজনৈতিক মত নেই, অর্থনীতি, মানুষের কাজ নিয়ে অভিজ্ঞতা বা বক্তব্য নেই এমন তারকার রাজনীতি করা অর্থহীন

    রাজনীতি কি শখ পূরণের জায়গা? জীবনে অন্য ক্ষেত্রে, অন্য পরিচয়ে সফল, প্রতিষ্ঠিত হলেই কি রাজনীতিতে আসা যায়? মানুষের স্বার্থ, প্রশ্ন, ভাল মন্দ নিয়ে ভাবনা বিচারের অভ্যেস না থাকলেও অন্য পেশা থেকে কিভাবে কেউ রাজনীতিতে আসতে পারে? ডাক্তারি করতে গেলে যেমন ডাক্তারি জানাটা প্রয়োজন তেমনই এক্ষেত্রে রাজনীতি, অর্থনীতি জানা প্রয়োজন নয়? যাঁদের নিজস্ব কোনও রাজনৈতিক মতামত নেই তাঁদের রাজনীতিতে এনে কি আদৌ কোনও উন্নতি হয়? তারকা সাংসদরা দেশের, সমাজের, ভোটারদের কোন উপকারটা করেছেন?

    2021: কী হবে?

    2021-এর থেকে প্রত্যাশা ও আশঙ্কা? সুযোগ ও চ্যালেঞ্জ। বঙ্গের জন্য, বাঙালির জন্য। কী ভাবছে www.4thPillars.com? সুদীপ্ত সেনগুপ্তর সঙ্গে সরাসরি আপনি।

    2020: ফিরে দেখা 'বিষ' বিশ

    টাইমস ম্যাগাজিনে লাল ঢ্যাড়া পড়েছে। অতিমারীর কবলে গোটা বিশ্ব। কর্মহীন অগণিত। তার মাঝে রাজনৈতিক অস্থিরতা। সব মিলিয়ে বর্ষবরণের চেয়ে বর্ষবিদায়ের আনন্দ বোধহয় এবার একটু বেশি। বছরের শেষ দিনে একবার ফিরে দেখা 'বিষ' বিশের এই সফরনামা। দেখল www.4thpillars.com

    সুবিধাবাদের রাজনীতিতে বঙ্গে এখন যে কোন‌ওভাবে ক্ষমতা দখল‌ই লক্ষ্য, মানুষ গৌণ

    আর কয়েক মাস পরেই বিধানসভা ভোট, পশ্চিমবঙ্গের ইতিহাসে যা প্রথমবারের জন্য এক অরাজনৈতিক ভোট হতে চলেছে। এত বছর ধরে ভোটের ইস্যু পাল্টে গেলেও, প্রতিবারই একটা নির্দিষ্ট অভিমুখ, বক্তব্য থাকত ভোট প্রার্থীদের। এই প্রথম কোনও রাজনৈতিক বক্তব্য নেই নেতাদের, এক কে কত বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত শুধু তার‌ই তরজা চলছে। সাধারণ মানুষের ভাল মন্দ এবং সরকার পরিচালনায় নীতি ও আদর্শের কথা শোনাই যাচ্ছে না।

    যে ভাইরাস সহজে ছড়ায় তার মারণ ক্ষমতা কম‌ই হ‌ওয়ার কথা

    করোনা ভাইরাসের নতুন স্ট্রেন দেখা দেওয়ার ফলে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে গোটা বিশ্বে। কিন্তু সেটা সম্পূর্ণ অমূলক। সাধারণত, যে ভাইরাস দ্রুত সহজে ছড়ায় তার মারণ ক্ষমতা কম হয়। মানুষের মতো ভাইরাসও চায় তার জিন ছড়িয়ে দিতে, রোগীকে মেরে ফেললে সেই উদ্দেশ্য সাধিত হয় না। এটাই স্বার্থপর জিন তত্ত্ব, সমস্ত জীব জগতের জন্য সত্য। করোনার এই নতুন জিনের সংক্রমণের হার 70 শতাংশ বেশি। অতএব অযথা বাড়তি আতঙ্কের কারণ নেই।

    সন্ধেবেলায় সিরিয়ালের বদলে রাজ্য রাজনীতি

    বাঙালির সান্ধ্যকালীন মনোরঞ্জনের দায়িত্ব আবেগঘন টিভি সিরিয়ালের বদলে বর্তমানে রাজ্যের রাজনীতিবিদরা যে গ্রহণ করেছেন তার প্রমাণ আমরা সদ্য‌ই পেয়েছি। কিন্তু রাজনীতি আর বিবাহ বিচ্ছেদ যদি শর্ত সাপেক্ষে যুক্ত হয় সেটা যথেষ্ট ভাবনার বিষয়। বিজেপি করলে নাকি তার পরিবারের কেউ রাজনীতিতে যোগ দিতে পারবে না! শুভেন্দু অধিকারীর পরিবারের অন্য তৃণমূল পদাধিকারীদের ভবিষ্যৎ কী?

    মানুষের মঙ্গল কল্যাণের জন্য কাজ করাই রাজনীতি, নেতা কেনা বেচা নয়

    আমরা 4thPillars রাজনীতি বলতে ক্ষমতা দখলের অঙ্ক কষা বুঝি না। ভোটের আগে নেতাদের হাত থেকে একটা দলের পতাকা সরিয়ে আরেকটা পতাকা ধরিয়ে দেওয়াও রাজনীতি নয়। সেটা মুনাফা বাড়ানোর জন্য কর্পোরেট জগতের মতো অধিগ্রহণ। আমাদের কাছে রাজনীতি হচ্ছে সেটাই, যেটা বর্তমানে দিল্লির সিঙ্ঘু সীমানায় ঘটে চলেছে। সংসদে প্রণীত তিনটি আইন পরিবর্তনে কৃষকরা যেভাবে পথে নেমে লড়াই করছেন সেটাই 4thPillars এর কাছে রাজনীতি। মানুষের স্বাধীন বিবেচনা প্রসূত মতামতই সেখানে শেষ কথা।

    সড়কে কৃষক, আন্দোলিত দেশ

    কৃষকদের দাবি মেনে সরকারের আইন প্রত্যাহারের কোনও লক্ষণ নেই। দু'পক্ষই অনড়। আন্দোলনের পরিণতি যাই হোক কৃষকরা গণ-আন্দোলনের নতুন ধারা দেখিয়ে দিচ্ছেন ভারতের রাজনীতিতে। এই নিয়েই www.4thpillars.com গত 14 ডিসেম্বর (সোমবার) একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল। এই আলোচনায় সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্তের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক গৌতম লাহিড়ী এবং শুভজিৎ বাগচীর।

    পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালই এখন সাংবিধানিক শৃঙ্খলা ভাঙায় শীর্ষে

    রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর রাজনৈতিক নেতাদের মতোই মিডিয়ায় ইন্টারভিউ দিচ্ছেন, জড়িয়ে পড়ছেন রাজনৈতিক বিতর্কে। রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে যিনি প্রতিনিয়ত প্রকাশ্য মন্তব্য করছেন, তাঁরই গোপন রিপোর্ট জমা পড়ার কথা কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে। সাংবিধানিক শৃঙ্খলা ও প্রশাসনিক শিষ্টাচার ভাঙায় রাজ্যপালই পশ্চিমবঙ্গে এখন এক নম্বর। অথচ তিনি নিজেই নিজেকে রাজ্যের প্রথম নাগরিক বলে ঘোষণা করে থাকেন!

    আইন বানালেই তার নৈতিক বৈধতা আসে না, দেখাচ্ছে কৃষক আন্দোলন

    বর্তমানে কৃষকদের আন্দোলনের চাপে পড়ে কেন্দ্রীয় সরকার স্বীকার করেছে যে নয়া কৃষি আইন প্রণয়নের ক্ষেত্রে কিছু "ভুল" হয়েছে। আইন বানানোর আগে কেন কথা বলা হয়নি, প্রশ্ন কৃষকদের। সংসদে জনপ্রতিনিধিদের উপেক্ষা করার মূল্য সরকারকে দিতে হচ্ছে সরাসরি জনতার সঙ্গে বৈঠকে বসে। নজিরবিহীন বিপাকে নরেন্দ্র মোদী সরকার। আইন প্রণয়ন প্রক্রিয়াকে প্রহসনে পরিণত করার পরিণতি কী? আইন প্রত্যাহার, নাকি অন্য ভাবে কৃষক আন্দোলন দমন?

    অন্নদাতা বনাম জুমলাদাতা

    দেশের রাজধানী কার্যত অবরুদ্ধ করে দিনের পর দিন রাস্তায় বসে রয়েছেন কৃষকরা। দাবি, নতুন কৃষি আইন প্রত্যাহার। আলোচনায় বসতে বাধ্য হলেও নতি স্বীকার করছে না সরকার। এই নিয়েই গত 9 ডিসেম্বর (বুধবার) www.4thpillars.com একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল। এই আলোচনায় সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্তের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক রজত রায়, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী সমীর দাস এবং অধ্যাপক অশোক সরকার।

    দেশের অন্নদাতারা রাজধানীর রাজপথে, ভাষণদাতা প্রধানমন্ত্রী কোথায়?

    গত সাড়ে ছয় বছরের মধ্যে এই প্রথম কোনও আন্দোলনকে কেন্দ্রীয় সরকার দেশবিরোধী তকমা দিতে পারল না। কৃষকদের সমস্যাকে ছোট জনগোষ্ঠীর আঞ্চলিক সমস্যাও বলা যাচ্ছে না। এই আন্দোলনই প্রথম মোদী সরকারকে বাধ্য করল সরকার বিরোধীদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে। সাড়ে ছয় বছরের মধ্যে এমন সংকটে পড়েনি সরকার। সংসদে জনপ্রতিনিধিদের উপেক্ষা করার মূল্য দিতে হচ্ছে সরাসরি জনতার সঙ্গে কথা বলতে বাধ্য হয়ে। দেশের হীনবল গনতন্ত্রকে যেন অক্সিজেন জোগাচ্ছে কৃষক আন্দোলন।

    কৃষক বনাম সরকার

    কৃষি সংস্কারের লক্ষ্যে নতুন আইনগুলি বাতিলের দাবিতে রাজপথে দেশের অন্নদাতারা। অবরুদ্ধ রাজধানী। আইন প্রণয়নের সময়ে সংসদে জনপ্রতিনিধিদের কথা শোনেনি সরকার। এবার কি সরাসরি জনতার কথা শুনতে হবে?

    পীড়িতের পূজ্য মারাদোনা

    প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার মূর্ত প্রতীক ফুটবলার মারাদোনা। বিশ্বব্যাপী পীড়িতের পূজ্য। প্রতিভার আগুনে নিজেকে জ্বালিয়ে দেওয়ার ক্ল্যাসিক উদাহরণ। খেলার মাঠের বাইরের মারাদোনা কেমন?

    নাগরিকের মৌলিক অধিকার খর্ব করে লাভ জিহাদের বিরূদ্ধে অর্ডিনান্স উত্তরপ্রদেশে

    দেশের সর্ববৃহৎ রাজ্য উত্তর প্রদেশে লাভ জিহাদ বন্ধ করার উদ্দেশ্যে অর্ডিনান্স ভারতীয় সংবিধান প্রদত্ত মৌলিক অধিকারের পরিপন্থী। হাই কোর্ট স্বীকৃতি দিলেও সরকার দুই ধর্মের বিয়েতে নারাজ। ভালবাসার সঙ্গে যুদ্ধকে মেলানো সনাতন ভারতীয় ভাবনায় ছিল না, কিন্তু আধুনিক হিন্দুত্ববাদীরা তাই করছে। বিয়ের জন্য বহু হিন্দু নারীকে ভয় দেখিয়ে তার ধর্ম পরিবর্তন করানো হয়েছে বলেই নাকি তাড়াহুড়ো করে এই অধ্যাদেশ জারি করা হয়েছে। কিন্তু ভারতের কোনও প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিক যদি স্বেচ্ছায় নিজের ধর্ম পরিবর্তন করে, ভিন্নধর্মের কাউকে বিয়ে করে সেটা তার সিদ্ধান্ত। এবং ভারতীয় আইন অনুযায়ী তা বৈধ। এই অধ্যাদেশ আইনে পরিণত হলে তা

    ছট পুজোকে কেন্দ্র করে রাজনীতিতে নীচে নামার প্রতিযোগিতার সাক্ষী থাকল বাংলা

    পরিবেশ চুলোয় যাক, করোনা হয়ে মানুষও মরে মরুক! তবু ছট পুজোয় কোনও বিধিনিষেধ চলবে না - এই রকমই মধ্যযুগীয় অবস্থান পশ্চিমবঙ্গের বিজেপির। ধর্মকেন্দ্রিক রাজনীতির তালে তাল দিয়ে তৃণমূলের সরকারও আদালতে রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজোর অনুমতি চাইতে গিয়েছিল! বৈজ্ঞানিক সত্যের ভিত্তিতে সামাজfক আচরণের কথা বলার সাহস নেই দুই প্রধান রাজনৈতিক দলের কারও? কোন অধঃপাতে চলেছে বাংলার রাজনীতি?

    ব্যক্তি ভেদে ভিন্ন বিচার

    চেনা মুখের টিভি অ্যাঙ্করকে জামিন দিল সুপ্রিম কোর্ট, ব্যক্তি স্বাধীনতার বাণী শুনল সারা দেশ। সেই আদালতেই বছরের পর বছর জামিন পান না প্রবীণ অধ্যাপক, কবি, সমাজকর্মী, লেখকরা! ন্যায়বিচার কি একেক নাগরিকের জন্য একেক রকম?

    বাঙালির সৌমিত্র

    প্রয়াত সৌমিত্র চট্টপাধ্যায়কে নিয়ে আলোচনায় চলচ্চিত্রকার গৌতম ঘোষ, শৈবাল মিত্র, সুরজিৎ দাশগুপ্ত, ঋতা দত্তর সঙ্গে চলচ্চিত্রকার-সাংবাদিক সুব্রত সেন।

    প্রয়াত সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

    অবশেষে চলে গেলেন ফেলুদা। মগজাস্ত্রের ধারে শেষ রহস্য ভেদ করা হয়ে উঠল না তাঁর। তাঁর মৃত্যুতে আমরা গভীর শোকাহত। মণিহারা হল বাংলা তথা বিশ্ব সিনেমা। ফোর্থ পিলার্সের বিশেষ শ্রদ্ধার্ঘ্য।

    বাজি বিহীন কালী পুজো

    কতটা মানুষের সচেতনতা আর কতটা আদালত নির্দেশ? যতটা যাই হোক, করোনার কালে নিস্তব্ধ কালী পুজো মানুষকে ভরসা জোগাবে।

    দেশের অর্থনীতির মূল রোগ অনিশ্চয়তা

    করোনার প্রকোপে লকডাউন ঘোষণার পর থেকেই ভুগছে দেশের সাধারণ মানুষ। অর্থনীতির গতি ক্রমশ নিম্নগামী। পরপর দুটি ত্রৈমাসিকে বৃদ্ধি ঋণাত্মক। অবশেষে কি একেবারে টেক্সটবুক মন্দা শুরু হল ভারতীয় অর্থনীতিতে? এই নিয়েই গত 13 নভেম্বর (শুক্রবার) www.4thpillars.com একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল। এই আলোচনায় সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্তের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন, অর্থনীতিবিদ দীপঙ্কর দাশগুপ্ত ও অজিতাভ রায়চৌধুরী।

    বিহার ভোটের ফল শাসক বিজেপি শিবির এবং বিরোধী উভয়ের পক্ষেই নিজ নিজ হিসেবে আশাব্যঞ্জক।

    বিহার ভোটের ফলাফলের রাজনৈতিক শিক্ষা বিরোধী শিবির এবং শাসক শিবির উভয়ের পক্ষেই যথেষ্ট আশাব্যাঞ্জক। বিজেপি এবং তার সহযোগী দলগুলোর রাজনীতি সম্পূর্ণ ভাবে জাত ও ধর্মের উপর দাঁড়িয়ে রয়েছে। এবং বিহার ভোটে তাদের এই জয় বুঝিয়ে দিল এখনও জাত-ধর্ম ভিত্তিক রাজনীতি করেও ভোটে জেতা যায়। অন্যদিকে বিরোধীদের মধ্যে তেজস্বী যাদবের নেতৃত্বে রাষ্ট্রীয় জনতা দল 75টি আসন পেয়ে একক শক্তিতে সব থেকে বড় দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। তেজস্বী যাদবরা দেখিয়ে দিলেন শিক্ষা, সেচ, কাজ, মূল্যবৃদ্ধির মতো ইস্যুগুলো নিয়ে লড়েও ভোটে যথেষ্ট ভাল ফল করা যায়। বামেদের ফলও আশাপ্রদ। 2020-র বিহার বিধানসভ ভোটের শিক্ষার দিকে নজর থাকবে আগামী দিন

    মানুষের বিস্মৃতির ভরসায় নোট বাতিলের চার বছরে কল্পিত সাফল্যের অসত্য কাহিনি ফাঁদলেন নরেন্দ্র মোদী

    নোটবন্দির 4 বছর পুরনো বেদনাদায়ক স্মৃতি যখন মানুষ ভুলতে বসেছে তখনই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তার সাফল্যের মিথ্যা আখ্যান রচনা শুরু করলেন। নোট বাতিলের ঘোষিত লক্ষ্য ছিল পূরণ হয়েছে বলে তাঁর দাবি পরিসংখ্যানের কারিকুরি মাত্র। এর জন্য কোটি কোটি ভারতবাসীর অবর্ণনীয় কষ্টের কথা প্রধানমন্ত্রী বলেননি। বহু ক্ষুদ্র এবং মাঝারি শিল্প বন্ধ হয়ে গেছে, বহু মানুষ কাজ হারিয়েছিলেন এই নোটবন্দির ফলে। কোনও নিরপেক্ষ অর্থনীতিবিদও নোটবন্দিকে উল্লেখযোগ্য অর্থনৈতিক পদক্ষেপ বলেননি। মানুষ অতীত ভুলে গেছে এই ভরসায় অসত্য আখ্যান রচনা করছেন মোদী।

    আমেরিকায় জমানা বদলে ভদ্রতা, বিজ্ঞানমনস্কতা, সত্যের পুনঃপ্রতিষ্ঠার বার্তা

    অবশেষে ট্রাম্প জমানার অবসান। নব নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন সকলকে নিয়ে চলার বার্তা দিলেন। শোনা গেল ঐক্য, ভদ্রতা, বিজ্ঞানমনস্কতার পুনঃপ্রতিষ্ঠার কথা। বাস্তবে কী প্রত্যাশিত? 4 নভেম্বর (রবিবার) www.4thpillars.com এই নিয়েই একটা আলোচনার আয়োজন করেছিল। এই আলোচনায় সুদীপ্ত সেনগুপ্তর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক প্রণয় শর্মা এবং ভারতীয় মার্কিন তিতাস রায় ও সোহম সেনগুপ্ত।

    ট্রাম্পের হাতে বিপন্ন আমেরিকার গণতন্ত্রকে বাঁচাতে সক্রিয় সে দেশের মিডিয়া

    স্বেচ্ছাচারী প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের লাইভ ভাষণ মাঝপথে বন্ধ করে তাকে মিথ্যাবাদী বলল আমেরিকান টেলিভিশন। কোনও রকম প্রমাণ, এমনকি নির্দিষ্ট অভিযোগ‌ও ছাড়া ট্রাম্পের এ হেন বক্তব্য যে ভুল তা স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে আমেরিকার সমস্ত প্রধান খবরের চ্যানেল।আমেরিকার টেলিভিশন যে সাহস দেখাতে পারে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম কেন তা পারে না? আমেরিকার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট কে হবেন, তার উপর ভারতের‌ও অনেক কিছুই নির্ভর করছে।

    বদলে যাওয়া আমেরিকার ভোট

    আমেরিকার এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে ছিল গোটা বিশ্ব। ভোটের আগে ও পরের ঘটনাক্রম সব মিলিয়ে অবাক বিস্ময়ে তাকিয়ে থাকার মতোই বটে। কী ভাবছেন সেখানকার ভোটদাতারা? কীই বা ভাবছে অভিজ্ঞমহল? এই নিয়েই www.4thpillars.com গত 5 নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) এক আলোচনার আয়োজন করেছিল। ঐতিহাসিক এই ভোট নিয়ে আলোচনায় সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্তের উপস্থিত ছিলেন, সাংবাদিক প্রণয় শর্মা এবং দুই তরুণ মার্কিন-বাঙালি নাগরিক সোহম সেনগুপ্ত ও নির্বাণ সেনগুপ্ত।

    ওড়িশা, রাজস্থান এ বছর আতস বাজি নিষিদ্ধ করার অপ্রিয় কঠিন সিদ্ধান্ত নিলেও পশ্চিমবঙ্গ পারল না

    ভারতের অন্য দুই রাজ্য যখন জনস্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে এবছর দিওয়ালিতে আতস বাজি নিষিদ্ধ করে দিল, পশ্চিমবঙ্গ সরকার কেন তা করতে পারছে না? আসন্ন ভোটের কথা মাথায় রেখেই কি তবে কাউকে অখুশি করতে চাইছে না তারা? পরিবেশবিদদের পরামর্শ অবেহেলা করে কোনও কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার বদলে দুর্গাপুজোর মতোই জনগণের শুভ বুদ্ধির উপরে এবছর বাজি বর্জন করা না করার সিদ্ধান্ত ছেড়ে দিয়েছে রাজ্য সরকার। তবে কি দুর্গাপুজোর মতোই আবারও আদালতের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন দীপাবলিতে দূষণ ঠেকাতে?

    আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও সে দেশের ভারতীয়-মার্কিন সমাজ

    অভূতপূর্ব উন্মাদনা তৈরি হয়েছে এবারের আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে ঘিরে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ভোটে হারলেও ক্ষমতা ছাড়বেন কি না সন্দেহ।জনপ্রিয়তায় অনেক এগিয়ে থাকলও নির্বাচনী পদ্ধতির জন্য প্রতিদ্বন্দ্বী বাইডেনের জয় নিশ্চিত নয়। কী হতে চলেছে? সাংবাদিক প্রণয় শর্মা এবং ভারতীয়-মার্কিন বিশিষ্ট বিজ্ঞানী শুভ্

    করোনার আবহে কালীপুজোয় বাজির দূষণ রুখতেও কি আদালতের নির্দেশ লাগবে?

    দুর্গাপুজোর পর করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার গোটা দেশে নিম্নমুখী। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের এবং কলকাতা ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় ছবিটা আলাদা। দুর্গাপুজোয় আদালতের নির্দেশে জনসমাগম নিয়ন্ত্রণ করে সংক্রমণের ঝুঁকি কমানো গিয়েছিল খানিকটা। কিন্তু আসন্ন কালীপুজোয় কী হবে? দায়িত্ববান নাগরিকের মতো এবার কি বা

    বিহারে লড়াই মোদী বনাম তেজস্বী যাদব, গৌণ নীতীশ

    28 অক্টোবর বিহার বিধানসভার ভোট শুরু। বিশ্বব্যাপী মহামারীর মধ্যে দেশে এই প্রথম বিধানসভা ভোট। লক্ষ লক্ষ শ্রমিক কাজ হারানোর পর এবং কৃষিক্ষেত্রে আমূল সংস্কারের লক্ষে আইন পরিবর্তনের পরেও এই প্রথম দেশে ভোট হচ্ছে। কী বার্তা দেবে বিহার? এই প্রশ্নকে সামনে রেখেই www.4thpillars.com একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল। এ

    করোনায় শারদীয়া: পুজো আছে, উৎসব নেই সুরুলের বড় বাড়ি-ছোট বাড়িতে

    প্রতিবারের মতো শিউলির ঘ্রাণ, ছাতিমের কড়া গন্ধে প্রকৃতি মাতোয়ারা। আকাশে সাদা মেঘের আনাগোনা দেখে ঋতু নিয়ে কারও মনে কোনও সংশয় থাকার কথা নয়। তবুও পুজোর চেনা গন্ধ এ বার খানিকটা ম্লান বোলপুরের অদূরে সুরুলের জমিদার বাড়িতে। এই বাড়ির দুই শরিকের পুজোয় এলাকাবাসী তো বটেই, আশপাশের গ্রাম থেকেও বহু মানুষ একত্রি

    পুজো নিয়ে রাজনীতি: মানুষের স্বার্থেই হাইকোর্টের রায়

    ধর্মীয় আচার ও সামাজিক উৎসবকে ছাড়িয়ে বাঙালির দুর্গাপূজা কি প্রধানত রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে পরিণত হয়েছে? ভোটের জমি দখলের লড়াইয়ের ছায়া কি স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে পুজোর প্যান্ডেলেই? এই প্রশ্নগুলোকে সামনে রেখেই www.4thpillars.com গত 21 অক্টোবর (বুধবার) একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল। এই আলোচনায় সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগ

    পুজোর সপ্তদশ উপচারটিই এখন আসল!

    ধর্মীয় আচার থেকে সামাজিক উৎসব হয়ে বাঙালির বারোয়ারি দুর্গাপূজা এখন হয়ে দাঁড়িয়েছে মূলত রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড। পুজো হবে না বলে বহুদিন আগে থেকে প্রচার, পুজো করার জন্য রাজ্য সরকারের উৎসাহ ও সহায়তা, হাইকোর্টের দর্শনার্থীবিহীন পুজোর নির্দেশ, এবং তা নিয়ে উদ্যোক্তাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া - সব মিলিয়ে অন্

    পাঁচিল তুলে বিশ্বভরতীর মূল ভাবনার অবমাননা হচ্ছে

    সারা বিশ্বের জন্য যা ছিল অবারিত দ্বার, তার চৌহদ্দি দু' মানুষ সমান উঁচু পাঁচিল দিয়ে ঘেরা এখন বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের প্রধানতম কাজ। প্রতিষ্ঠানের মধ্যেও চলছে স্বেচ্ছাচারী শাসন, যা রবীন্দ্র-ভাবনার পরিপন্থী৷ কেন এই হাল? এই নিয়েই www.4thpillars.com গত 19 অক্টোবর (সোমবার) একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল। এই আলোচন

    শান্তিনিকেতনে অনাচার

    শান্তিনিকেতন তথা বিশ্বভারতী অবাঞ্ছিত কারণে ইদানিং বারবার সংবাদের চর্চায়। উপাচার্যর সঙ্গে আশ্রমের প্রাক্তনীদের সাম্প্রতিক বৈঠকে কর্পোরেট কর্তার সঙ্গে বেতনভোগী কর্মীর সম্পর্কের ছায়া। হচ্ছেটা কী? প্রাক্তনী কুন্তল রুদ্র, সুদৃপ্ত ঠাকুর ও শমীক ঘোষের সঙ্গে আলোচনায় সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    বিজ্ঞাপনেও সম্প্রীতি নয়

    দেশের অন্যতম বড় গয়না সংস্থা উৎসবের মরশুমে বাধ্য হল অডিওভিশুয়াল বিজ্ঞাপন প্রত্যাহার করে নিতে। মুসলিম পরিবারে হিন্দু মেয়ের বিয়ে নাকি লাভ জিহাদ - প্রেমের নামে ধর্ম প্রচার! মত প্রকাশের স্বাধীনতা শুধু সংবিধানের পাতায় আটকে থাকবে? চলচ্চিত্রকার সুব্রত সেন ও সাংবাদিক শুভাশিস মৈত্রর সঙ্গে আলোচনায় সুদীপ্ত সেন

    এবার আপনি চাঁদা দিয়েছেন 37 হাজার পুজোয়!

    বারোয়ারি দুর্গাপুজোয় এবার রাজ্য সরকারের খরচ 185 কোটি টাকা। একটি বিশেষ ধর্মের অনুষ্ঠানে ধর্মনিরপেক্ষ সরকার অনুদান দেবে কেন? আয়োজক ক্লাবগুলোকে তুষ্ট রাখতেই কি ভোটের 6 মাস আগে জনগণের অর্থে সরকারের এই বদান্যতা? উৎসবের সময়ে রোগের সংক্রমণ কমাতেই বা সরকার কী করছে? অনেক প্রশ্ন। উত্তর অজানা।

    কোভিড শয্যা বাড়ানোর সঙ্গেই রোগীর সংখ্যা কমানোয় নজর দিক সরকার

    পশ্চিমবঙ্গে রোজ‌ই বাড়ছে কোভিড রোগীর সংখ্যা। 100 নতুন রোগী পিছু নিরাময় 88 জনের। সারা দেশে কিন্তু উল্টো ছবি, নিরাময়‌ই রোজ বেশি, 107 জনের। এই পরিস্থিতিতে দুর্গাপূজা নিয়ে মাতামাতি ভয়ঙ্করের সঙ্কেতবাহী। এখন‌ও সময় আছে, সংযত হোক সবাই!

    "আজ তোমার পরীক্ষা ভগবান। তুমি পাথর নাকি প্রাণ!'

    বাঙালির প্রিয় উৎসব দুর্গাপুজো আসন্ন। সেই উপলক্ষে কেনাকাটা করতে রাস্তায় মানুষের ঢল দেখে মনে হচ্ছে করোনা বিদায় নিয়েছে। কিন্তু করোনার সংক্রমণ তো পুজো দেখে বন্ধ থাকবে না। আমাদের রাজ্যে গতকাল অবধি সংক্রমণের যা হার জানা গেছে তাতে সমস্ত বিধি লঙ্ঘন করে উৎসবে মেতে ওঠার কোনও কারণ নেই।

    মাদকের রাজনীতি

    রিয়া চক্রবর্তীকে জামিন দিয়ে হাইকোর্ট বলল, গ্রেফতারির কোনও কারণই দেখাতে পারেনি মাদক দমন সংস্থা এনসিবি। মাদক নিয়ন্ত্রণের নামে বলিউডে চলছে বিজেপি বিরোধী সামান্যতম স্বরও বন্ধ করার ছক। শাসকের কথায় ওঠবোস করছে মিডিয়া। আলোচনায় আইনজীবী অরুণাংশু চক্রবর্তী ও সাংবাদিক রজত রায়ের সঙ্গে সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    ফিজিক্স নোবেল 2020 এবং অমলকুমার রায়চৌধুরী

    ফিজিক্সে এবার অন্যতম নোবেল বিজয়ী রজার পেনরোজ। কৃষ্ণগহ্বর নিয়ে তাঁর কাজের তত্ত্বগত ভিত্তি রচনা করেছিলেন বাঙালি পদার্থবিজ্ঞানী অমলকুমার রায়চৌধুরী। তাঁর ছাত্র এবং আজকের দুই বিশিষ্ট পদার্থবিজ্ঞানী অমিতাভ রায়চৌধুরী এবং নারায়ণ ব্যানার্জির সঙ্গে এই নিয়ে আলোচনায় সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    ফিজিক্স নোবেল 2020 এবং অমলকুমার রায়চৌধুরী

    ফিজিক্সে এবার অন্যতম নোবেল বিজয়ী রজার পেনরোজ। কৃষ্ণগহ্বর নিয়ে তাঁর কাজের তত্ত্বগত ভিত্তি রচনা করেছিলেন বাঙালি পদার্থবিজ্ঞানী অমলকুমার রায়চৌধুরী। তাঁর ছাত্র এবং আজকের দুই বিশিষ্ট পদার্থবিজ্ঞানী অমিতাভ রায়চৌধুরী এবং নারায়ণ ব্যানার্জির সঙ্গে এই নিয়ে আলোচনায় সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    রামায়ণের যুগ থেকেই অন্যায়ের প্রতিবাদে রাষ্ট্রশক্তি নত হয়, হাথরাসেও তাই হল

    হাথরাসের ঘটনায় গোড়া থেকেই অপরাধ এবং অপরাধীদের আড়াল করার চেষ্টা করা হচ্ছিল। সরকারের তরফে মিডিয়া এবং অন্যান্য দলের কর্মীদের বাধা দেওয়া হয়েছে যাতে তারা নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে না পারে। কিন্তু সমবেত প্রতিবাদ ও জনরোষের সামনে অবশেষে আদিত্যনাথের সরকার বাধ্য হয় তাদের সিদ্ধান্ত বদলাতে। মেনে

    হাথরসের খুন-ধর্ষণে বিচলিত দেশের বিবেক, নির্বিকার শাসক

    হাথরসের ঘটনায় বিক্ষোভ, প্রতিবাদের ঢেউ দেশের সীমানা পেরিয়ে সারা বিশ্বে পৌঁছে গেছে। ঘটনার নৃশংসতায় শিউরে উঠছেন মানুষজন। হাথরসের ঘটনা চর্চার পরিসর থেকে চলে যাওয়ার আগেই সেই রাজ্য থেকে চারটি ধর্ষণের ঘটনার খবর এসেছে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে প্রশাসনের সর্বোচ্চ স্তর থেকে অপরাধ এবং অপরাধীদের আড়াল করার চেষ্টা

    No one destroyed Babri Masjid

    সিবিআই আদালতে বাবরি মসজিদ ধ্বংস কাণ্ডে অভিযুক্ত সকলেই বেকসুর খালাস পেলেন। আদালতের বক্তব্য তাঁদের বিরুদ্ধে যথেষ্ট প্রমাণ নেই। মনে পড়ে, সকলের সামনে খুন হ‌ওয়া জেসিকা লাল হত্যাকাণ্ডে আদালতে প্রথমে মনু শর্মা খুনি সাব্যস্ত হয়নি।

    কৃষি আইনে কৃষকের কণ্ঠস্বর না শোনাতেই আপত্তি

    কৃষি সংস্কারের লক্ষে তিনটি আইন স্টিম রোলার চালিয়ে পাশ হল। সংসদে বিরোধী পক্ষ তো বটেই, কৃষির সঙ্গে স্বার্থ জড়িয়ে আছে এমন কোন‌ও পক্ষেরই মতামত শোনা হল না। ইউ পি এ আমলে বিশেষজ্ঞ কমিটির অনুমোদন সত্ত্বেও বিটি বেগুন চাষে সরকার অনুমতি দেয়নি চাষীদের আপত্তিতে।

    লকডাউন সূচনার 6 মাস পরে দেখা যাচ্ছে আশার আলো

    লকডাউন পর্বের ঠিক 6 মাস পরে কী অবস্থায় দাঁড়িয়ে আমরা? গত ছয় দিন ধরে দেশে নতুন সংক্রামিত রোগীর সংখ্যা সেরে ওঠা রোগীর সংখ্যার থেকে কম, রোজ‌ই কমছে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা। এই প্রথম একটা রূপালী রেখা দেখা যাচ্ছে। এই ধারা বজায় থাকলে দেশে করোনা একদিন নিশ্চয়ই নির্মূল হবে।

    করোনার মধ্যে বিশ সালে একের পর এক একুশে আইন!

    দু'দিন আগেই একপ্রকার গায়ের জোরে রাজ্যসভায় পাশ হয়ে যায় কৃষি বিষয়ক দুটি বিতর্কিত গুরুত্বপূর্ণ বিল। আবারও গত মঙ্গলবার, 22 সেপ্টেম্বর, মাত্র তিন ঘণ্টায় লোকসভায় শ্রম এবং শ্রমিক সংক্রান্ত তিনটি গুরুত্বপূর্ণ আইন পাশ হয়ে গেল। উভয় ক্ষেত্রেই বিরোধী মত শোনার তোয়াক্কা পর্যন্ত করেনি সরকার।

    ওটা রাজ্যসভা নাকি পাড়ার ক্লাব!

    লোকসভা নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে সংসদে ঢোকার প্রথম দিনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রদর্শিত সংসদের প্রতি সম্মান যে কেবল মাত্র "প্রদর্শনী", তা গত ছয় বছরে বারবার প্রমাণিত হয়েছে। কৃষি সংস্কারের লক্ষে বিল নিয়ে রাজ্যসভার ঘটনা আবারও তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখাল।

    মহালয়ার একমাস পরে পুজোয় নিহিত প্রাচীন ভারতীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানের গর্ব

    প্রাচীন ভারতীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা লুনার ক্যালেন্ডার এবং সোলার ক্যালেন্ডারের মধ্যে ভারসাম্য আনার জন্য আবিষ্কার করেন মলমাস। যার ফলে চান্দ্র ক্যালেন্ডার অনুযায়ী পুজো হলেও তা ঘুরেফিরে সাধারণ সৌর বছরের এক‌ই ঋতুতেই পড়ে। মহালয়ার এক মাস সাত দিন পরে দুর্গাপূজার সপ্তমীতে কোনও জটিলতা বা রহস্য নেই।

    লকডাউনের পর প্রথম দিনের মেট্রো সফর

    ১৭৪ দিন পর সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে যাত্রী সাধারণের জন্য খুলে গেল কলকাতা মেট্রো। তবে যখন তখন মেট্রোতে সফর করা আপাতত করতে পারবেন না। সফরের আগে বেশ কিছু নিয়ম কানুন মেনে তবে মিলবে ট্রেনে ওঠার অনুমতি। স্টেশনে পুলিশের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রত্যেক যাত্রীর ই-পাস দেখে তবেই স্টেশনে প্রবেশের অনুমতি

    A media trial that puts khap panchayat to shame!

    Media trial of Rhea Chakraborty exposes the collapse of rule of law? Lawyers Bikash Ranjan Bhattacharya and Arunava Ghosh discuss that with Sudipta Sengupta in 4thPillars Live "খাপের বাপ', the Father of All Khap Panchyats.

    বিহার ভোটে আসল ইস্যু ভোলাতেই সুশান্তকে ভুলতে না দেওয়ার চিৎকার

    বিহারের বিধানসভা ভোটে প্রচারে এসেছে সুশান্ত সিং রাজপুতের ছবি সহ স্টিকার - ভুলছি না, ভুলতে দেব না। দেশের সবচেয়ে বেশি পরিযায়ী শ্রমিকের রাজ্যে তাদের ইস্যু কি ভুলে গেল সবাই? কৃষিনির্ভর রাজ্যে কৃষকের কথাই বা কই? একটি আত্মহত্যার কাহিনিতে মানুষকে মজিয়ে রেখে ভোটের রাজনীতিতে আসল ইস্যুকে আড়াল করার কৌশল।

    আইনজীবীদের কি ভয় পাচ্ছেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা?

    সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অরুণ মিশ্রের বিদায় অনুষ্ঠানে সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান দুষ্মন্ত দাভেকে বক্তব্য রাখতে দেওয়া হয়নি, এমনটাই দাবি তাঁর। কিন্তু কেন? অরুণ মিশ্রের সর্বশেষ বহু চর্চিত মামলায় দাভে ছিলেন প্রশান্ত ভূষণের পক্ষে। তবে কি আইনজীবীরা মুখ খুললে বিচারপতিদের সমস্যা হতে পারে?

    Journalists Gautam Lahiri and Jayanta Ghoshal On Late Pranab Mukherjee

    Journalists Gautam Lahiri and Jayanta Ghoshal in conversation with Sudipta Sengupta on Life and Politics of Late Pranab Mukherjee, former President of India

    এক টাকা নিন, সত্যি বলতে দিন, একশো কোটি স‌ইবে না!

    এক টাকা আর 100 কোটি টাকার যোগসূত্র কোথায়? আইনের চোখে আদালত অবমাননায় দোষী প্রশান্ত ভূষণ মানুষের দৃষ্টিতে ন্যায়বিচারের পক্ষে যোদ্ধা। অতি প্রভাবশালী ব্যক্তিকে আইনের হাত থেকে ছাড় দেওয়ার জন্য 100 কোটি টাকার ঘুষের অভিযোগ‌ও আছে!

    আসল ইস্যুগুলোই এড়িয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

    "মন কি বাত' বলতে এসে দেশি কুকুর থেকে অসমাপ্ত খেলনা - সব ব্যাপারেই মতামত দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু দেশবাসী কি আদৌ সেসব জানতে চায়? অর্থনৈতিক সংকট, পরীক্ষা নিয়ে ছাত্রসমাজের গভীর উদ্বেগ, করোনার রেকর্ড সংক্রমণ প্রশ্নে তিনি নীরব। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ভারতবাসীর আসল সমস্যা কেন এড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি?

    Lawyer Aunangshu Chakrabarty and Journalist Suvashis Maitra on Media behaving like Khap Panchayat

    Lawyer Aunangshu Chakrabarty and Journalist Suvashis Maitra in conversation with Sudipta Sengupta on Media behaving like Khap Panchayat in the Sushant Singh Rajput unnatural death case

    Sudipta Sengupta in conversation with audience on Media Trial

    Sudipta Sengupta introspects with audience on Trial by Media in the context of unnatural death of Actor Sushant Singh Rajput

    Bikash Ranjan Bhattacharya and Arunava Ghosh on Two Tweets and Apex Court

    Bikash Ranjan Bhattacharya and Arunava Ghosh in conversation with Sudipta Sengupta on Two Tweets and Apex Court

    শাসক ব্যর্থ, বিরোধী আরও ব্যর্থ

    ইতিহাস বলে শাসকের শাসন যখন শোষণে পরিণত হয়, তখন দেশবাসীকে বিকল্প পথ দেখাতে এগিয়ে আসে বিরোধী দল। কিন্তু সেই দল নিজেই যদি দিশাহীন, নেতৃত্বহীন হয়? দেশের প্রধান বিরোধী দল অভ্যন্তরীণ টানাপোড়েনে জীর্ণ। যে দল নিজে অক্ষম, অচল, বিভ্রান্ত সে মানুষকে কী পথ দেখাবে?

    Decline and fall of constitutional and democratic institutions in India

    Ardhendu Sen, former Chief Secretary, West Bengal and Prof. Samir Kumar Das, Political Science in conversation with Sudipta Sengupta on Decline and fall of constitutional and democratic institutions in India.

    বিশ্বভারতীতে হঠকারিতার প্রতিযোগিতায় বিজেপি তৃণমূল

    কেন্দ্রের শাসকের এজেন্ট উপাচার্য বিশ্বভারতীকে হিন্দুত্ববাদী করার এজেন্ডা নিয়ে এগোচ্ছেন। আটকাতে গিয়ে রাজ্যের শাসক তৃণমূল হাঁটছে নৈরাজ্যের পথে। পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্ত, রাজ্যপাল ধনখড়ের সঙ্গে সরকারের সংঘাত - সবই কেন্দ্র রাজ্য সম্পর্কের চূড়ান্ত অবনতির নজির। এর শেষ কোথায়?

    Bikash Ranjan Bhattacharya and Arunava Ghosh on Criminal Contempt and faith in Judiciary

    Bikash Ranjan Bhattacharya and Arunava Ghosh in conversation with Sudipta Sengupta on Criminal Contempt and faith in Judiciary

    Dr. Kausik Majumdar on Corona pandemic

    Dr. Kausik Majumdar, MRCP, FRCP discusses critical aspects of the challenges of Covid-19 and our response to them.

    প্রধানমন্ত্রী কি সত্য গোপন করছেন?

    প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ওয়েবসাইটে আপলোড করা রুটিন তথ্য দুদিনের মাথায় হঠাৎই উধাও। চিনা সৈন্যবাহিনী প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘন করে ভারতে ঢুকে পড়েছিল কিনা, এখনও তার সদুত্তর মেলেনি। বিদেশ ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ভাষ্যের সঙ্গে মোদীর দাবি মিলছে না।

    Live chat with Economist Abhirup Sarkar

    Economist Abhirup Sarkar on quality of education in the context of National Education Policy 2020

    Live chat with Academician Partha Pratim Roy and Prof. Maitree Bhattacharyya

    Partha Pratim Roy and Maitree Bhattacharyya on School Education in NEP 2020

    Live chat with Prof. Sabyasachi Basu Ray Chaudhury, VC, Rabindra Bharati University

    Prof. Sabyasachi Basu Ray Chaudhury on National Education Policy

    Live chat with Prof. Suranjan Das, VC, Jadavpur University

    Prof. Suranjan Das on National Education Policy

    ধর্মীয় উৎসবই মুখ্য, করোনা নিয়ন্ত্রণ গৌণ!

    লকডাউনের দিনলিপিতে বারবার পরিবর্তন পশ্চিমবঙ্গে। কারণ, ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান এবং উৎসব পালন। বিশ্বব্যাপী মহামারীর থেকে ধর্মীয় উৎসব পালন কি বেশি জরুরি? মহামারী থেকে কি শুধুই ধর্ম বাঁচাবে, নাকি আধুনিক বিজ্ঞান ও চেতনা? মা মনসাকে আঁকড়ে ধরে রামমোহন, বিদ্যাসাগর, রবীন্দ্রনাথকে বিসর্জন?

    Live chat with Prof. Sukanta Chaudhuri

    Prof. Sukanta Chaudhuri on National Education Policy

    Live Chat with Gautam Lahiri

    Journalists Gautam Lahiri and Sudipta Sengupta discuss Departed Congress Leader Somen Mitra

    নম্বর দিয়ে খুশি করাই শিক্ষা নয় 

    শিক্ষা ব্যবস্থায় এক বছর নষ্ট হওয়া কোনও নতুন ঘটনা নয়, গোটা বিশ্বে এমন ঘটনা আগে বহুবার ঘটেছে। এতে শিক্ষার্থীর জীবনে বিশেষ কোনও ক্ষতি‌ও হয় না। এই মহামারীর সময় ইউজিসি কেন পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করছে দিন বেঁধে? কিছু রাজ্যে তার বিরোধিতাও কি সবাইকে বেশি নম্বর দিয়ে খুশি করার পপুলিসট রাজনীতি? শিক্ষা নিয়ে

    অবশেষে বুঝল মানুষ, প্রভাব লকডাউনে

    খবরের কাগজ আর পরিসংখ্যানে আবদ্ধ নেই। করোনা ঢুকছে ঘরে ঘরে। আতঙ্ক হোক বা সচেতনতা, সাধারণ মানুষ দেরিতে হলেও বিপদের ভয়াবহতা বুঝলেন। তার প্রভাব দেখা যাচ্ছে সপ্তাহান্তের লকডাউনে। শহর ও শহরতলীর লকডাউন চিত্র ধরা পড়ল ফোর্থ পিলার্সের ক্যামেরায়।

    ভিন্নমতের স্বীকৃতিতে বাছবিচার যেন না হয়!

    গণতন্ত্রের পূর্বশর্ত সরকার এবং বিচার ব্যবস্থার মধ্যে অভেদ্য দেওয়াল। বিচারব্যবস্থার নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে আদালত অবমাননার দায়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণ আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ।

    ভয়‌ও নেই, ভরসাও নেই পরিসংখ্যানে, নিজেকেই নিজেকে বাঁচাতে হবে

    পরিসংখ্যান ব্যক্তি বিশেষের জন্য অর্থহীন, জনসমষ্টির পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্বব্যাপী মহামারীর সময়ে সতর্ক সচেতন দায়িত্বশীল নাগরিকের কর্তব্য, সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে চলে নিজের ও অপরের সংক্রমণ কমাতে সাহায্য করা। সপ্তাহে দুদিন লকডাউন সঠিক নিদান।

    খাবারের মূল্যবৃদ্ধি আর সুদ কমার ফলে আয় হ্রাসের জাঁতাকলে পিষ্ট মানুষ

    খুচরো মূল্য বৃদ্ধি 6 শতাংশের উপর। ব্যাংকের সুদের হার কমতে কমতে সেখানে সেই স্তরেই। খাদ্যদ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি প্রায় 8 শতাংশ। করোনার আগে মানুষ কি না খেয়েই মরবে? নেতাদের কিনে খেতে হয় না বলে এই নিয়ে কেউ ভাববে না?

    ভারতীয় গণতন্ত্রে নিউ নর্মাল: বিনা ভোটে সরকার বদল

    ভারতীয় গণতন্ত্রেও চলছে নিউ নর্মাল ব্যবস্থা। এখানে সরকার পরিবর্তনের জন্য এখন জনাদেশের মূল্য বা প্রয়োজন নেই। টাকা এবং ভয় দেখানোর ক্ষমতাই বলে শেষ কথা। 2014 থেকে ছয়টি রাজ্যের পর এবার কি রাজস্থান? কিন্তু এই কারবারের পর গণতন্ত্রের উপর মানুষের আস্থা বজায় থাকবে তো? শাসক বুঝছে না এর শেষ পরিণতি ভয়ঙ্কর!

    আম জনতার করোনা হলে সরকারি হাসপাতালে বেড মিলবে তো?

    বিগ বি হোন বা কোনও নেতা মন্ত্রী বা সাধারণ মানুষ - করোনার থাবা থেকে রেহাই নেই কারও। যে কোনও সময়ে অসুস্থ হতে পারেন যে কেউ। সরকারি হাসপাতাল‌ই সবার ভরসা। কিন্তু বেড অ্যালটমেন্ট ন্যায্য হবে তো? রাজনৈতিক খবরদারিতে রাশ টেনে চিকিৎসায় শেষ কথা বলুন ডাক্তাররা।

    এনকাউন্টার কিলিংয়ে ভারতীয় বিচারব্যবস্থার হত্যা

    গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের এনকাউন্টারে হত্যা, হায়দ্রাবাদে প্রিয়াঙ্কা রেড্ডির ধর্ষকদের এনকাউন্টারে হত্যা। এমন ঘৃণ্য মানুষদের মৃত্যুতে কারও কোনও দুঃখ নেই। কিন্তু আদালত অবধি পৌঁছনোর আগেই এই হত্যায় মূল অপরাধের তদন্ত হয় না, রাঘব বোয়ালরা অধরা থেকে যায়। এ তো গণতন্ত্র ও বিচারব্যবস্থার‌ই মৃত্যু! ক্রমশ এনকা

    লকডাউনের উল্টো ফল! কমার বদলে করোনা বাড়ল?

    বিশ্বের কঠোরতম লকডাউনে ডান্ডা দেখিয়ে দেশবাসীকে ঘরবন্দি করে সরকার। তাতেই সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা ছিল বিজ্ঞানীদের। অর্থনীতিবিদরা বলছেন তাই হয়েছে। ঘরে ঘেঁষাঘেঁষিতে সংক্রমণ ছড়ানোর পর ভাইরাস ছড়িয়েছে সারা দেশে। লকডাউন আর আনলকের তামাশার মানেটা কী?

    টিকা আবিষ্কার এবং জুতা আবিষ্কারের তফাৎ বুঝল ICMR

    15 আগস্টের মধ্যে করোনার ভ্যাকসিন বাজারে আনার নির্দেশের সুর বদলাল ICMR. বিজ্ঞানীদের সমবেত কথা, 64 সপ্তাহের কাজ পাঁচ সপ্তাহে হয় না। সময় বেঁধে টিকা আবিষ্কার নজিরবিহীন, অবাস্তব। অবৈধ তাড়াহুড়োর ফল হতে পারে অভূতপূর্ব মাত্রার মারাত্মক! এবার কি বোধোদয় হবে কর্তাদের?

    মাথায় খাঁড়া ঠেকিয়ে ভ্যাকসিন! অবিকল হিটলার!

    15 আগস্টের মধ্যে করোনার ভ্যাকসিন! আইসিএম‌আর-এর নির্দেশে হতভম্ব বিজ্ঞানীরা! এ যে সরকারি নির্দেশে দশ মাস দশ দিনের প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া তিন মাসে শেষ করার নিদান! বৈজ্ঞানিক সমাজ, সারা পৃথিবী হাসছে এই বালখিল্য আস্ফালনে! আমাদের শাসক কি পুরোই অন্ধ? প্রধানমন্ত্রীর এই চমকদারির মূল্য সাধারণ মানুষকে চোকাতে হবে

    জাতীয় স্বার্থ রক্ষার নামে সংবাদ মাধ্যমের কণ্ঠরোধ

    কেন্দ্রীয় সরকার নিয়ন্ত্রিত প্রসারভারতীর অভিযোগ, পিটিআই জাতীয় স্বার্থবিরোধী খবর করছে। এই 'জাতীয় স্বার্থ' বিষয়টা ঠিক কী? কোথায় বলা আছে? কে ঠিক করল? তা কি শুধুই শাসকের বন্দনা? সংবাদমাধ্যম তথ্যনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে দায়বদ্ধ, কারও তল্পিবাহক হ‌ওয়া তার কাজ নয়।

    শাসক কখন‌ও নীতিশিক্ষা বা যোগাসনের মাস্টার নয়

    প্রধানমন্ত্রী, সরকার, পুলিশ সকলের কাজ সংবিধান ও আইনে নির্দিষ্ট। আদালত বিচার করবে আইন মোতাবেক।  সামাজিক বার্তা দেওয়া আদালত বা সরকারের কাজ নয়। যোগাসন শেখানো প্রধানমন্ত্রীর কাজ নয়।

    দিল্লি দাঙ্গার রিপোর্টে আমরা-ওরা! মানবাধিকার‌ও বাইনারি!

    করোনা আবহে চাপা পড়ে গেছে নয়া নাগরিকত্ব আইন বিরোধী আন্দোলন আর ফেব্রুয়ারি মাসে দিল্লির দাঙ্গা। সেই দাঙ্গা নিয়ে চারটি ভিন্ন সংগঠনের রিপোর্টে সম্পূর্ণ বিপরীত ভাষ্য। দুটি সরকারের কথার প্রতিধ্বনি, অন্য দুটি মানুষের অভিযোগের সত্যতা মানছে। মানবাধিকারও কি দলীয় রাজনীতির কুক্ষিগত আজ?

    চুরির টাকা লাইন দিয়ে ফেরত

    আমপান বিধ্বস্ত অঞ্চলে নগদ ত্রাণের একাংশ দুর্গতদের কাছে পৌঁছায়নি। চলে গেছে দুর্নীতিগ্রস্ত কিছু মানুষের পকেটে। সর্বোচ্চ রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক স্তরের সদিচ্ছায় তাদের থেকে চাপ দিয়ে টাকা ফেরত নেওয়া হচ্ছে। সাধু উদ্যোগ। কিন্তু রাজনীতির তৃণমূল স্তরে কি নৈতিকতা আর চক্ষুলজ্জা বলে আর কিছু নেই! নগদ ত্রাণের কা

    রামদেবের কোম্পানির উদ্ভট দাবি, করোনার ওষুধ আটকে দিল কেন্দ্র

    সরকার ও বিজ্ঞানী মহলে না জানিয়ে বাজারে করোনার ওষুধ ছাড়ার চেষ্টা রামদেবের সংস্থার। স্বীকৃতি নেই, পরীক্ষা নেই, অনুমোদন নেই। মানুষের অসহায়তার সুযোগ নিয়ে ব্যবসায়ে কঠোর নিষেধাজ্ঞা সরকারের, বেঁচে গেল সাধারণ মানুষ‌।

    ব্রিটিশদের ডিভাইড অ্যান্ড রুল পলিসি ফিরে এল নাকি?

    ভারতে বিশেষ কয়েকটি জাতি এবং প্রদেশের নামে রেজিমেন্ট গড়ে তুলেছিল ব্রিটিশরা।উদ্দেশ্য ছিল ভারতবাসীর মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করা। চিন সীমান্তে বিহার রেজিমেন্টের নিহতদের কমান্ডার কর্নাটকের, দুই জ‌ওয়ান বাংলার। তবু শুধু বিহারীদের বীরত্বের কথাই মনে পড়ল প্রধানমন্ত্রীর। বিহারে বিধানসভা ভোট আসছে বলে? এ কি নব্য

    দেশের অখণ্ডতা এবং সার্বভৌমত্ব সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য অস্পষ্ট

    চিনের সঙ্গে সীমান্ত বিরোধে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য চিন‌ই সুবিধাজনকভাবে ব্যবহার করছে। সর্বদলীয় বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতিতে এত অস্পষ্টতা কেন? দেশ আগে, না মোদীর ভাবমূর্তি?

    চিনের সঙ্গে কী হচ্ছে?

    চিন সীমান্তে উত্তাপ বাড়ছিল বহু দিন ধরে। মানুষের হাজারো প্রশ্ন, সরকার নিরুত্তর ছবি। বিদেশ ও প্রতিরক্ষার মধ্যে দলীয় রাজনীতি আনার ফলেই স্বচ্ছতার অভাব। মানুষের আস্থা শুধু বুক বাজিয়ে কথার ফুলঝুরিতে আসবে না।

    প্রশ্ন তোলা মানেই রাজনীতি করা নয়

    সাধারণ মানুষ সিস্টেমকে প্রশ্ন করছে মানেই, সে রাজনীতি করছে এমনটা নয়। গণতন্ত্রে প্রত্যেকটা মানুষের সত্য জানার অধিকার কি নেই? প্রশ্ন তুললেই তাকে রাজনীতির ধ্বজাধারী ঠাহর করে আমরা গণতন্ত্রের পরিসরকে ছোট করে ফেলছি না কি?

    আনলকড শহর

    রাজ্য সরকার অনুমতি দিয়েছে আজ থেকে যানবাহন - রেস্তোরাঁ - বেসরকারি অফিস ইত্যাদি খুলে দেওয়ার। এদিকে রাজ্যে সংক্রমণের হার বেড়েই চলেছে পুরোদমে। এই অবস্থায় কতটা সচেতন শহরবাসী? সোমবারের কলকাতা কেমন ছিল?

    হাতির মৃত্যুতেও ধর্ম রাজনীতি!

    কেরালায় গর্ভবতী হাতির মৃত্যুতে দেশজুড়ে বহু মানুষ ক্ষুব্ধ। দোষারোপের বাড়াবাড়িতে কেউ ধর্ম খুঁজছেন, কেউ কোনও ভাবধারা। সোশাল মিডিয়ার দেওয়ালে অনর্গল পোস্টের মাঝে রাঝনীতিও ঢুকছে চুপিসাড়ে।

    মানুষ বাদ দিয়ে পরিবেশ নেই

    মানুষের ক্রমাগত আগ্রাসনে বিপন্ন বন্যপ্রাণ। পরিবেশ রক্ষা করতে হলে তার অঙ্গ মানুষকেও বাঁচতে হবে। ভারসাম‌্যের সন্ধানই আজকের চ্যালেঞ্জ।

    সাবধান! পাগলা হাতি, মত্ত মাহুত!

    শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে প্রকাশ্যে গলা টিপে খুন কৃষ্ণাঙ্গ। ন্যায়বিচারের দাবিতে পথে নেমে এসেছে গোটা দেশ। আমেরিকার পরিস্থিতি উদ্বেগ বাড়াচ্ছে সারা বিশ্বের।

    সবচেয়ে দরকারের সময়ে রাষ্ট্র কোথায়?

    ক্ল্যাসিকাল মার্ক্সবাদে সেরা সুখের সময় হল রাষ্ট্র যখন বিলীন হয়ে যাবে! আজকের ভারতে চরম দক্ষিণপন্থী শাসনে যেন সেই ইউটোপিয়া বাস্তবায়িত হচ্ছে! মানুষের আপ্রাণ আকুতি, ফিরে এসো রাষ্ট্র!

    যখন দরকার ঠিক তখনই হাত গুটিয়ে নিলেন মোদী

    মাত্র চার ঘণ্টার নোটিসে লকডাউন। এরপর ঘনঘন টিভিতে আগমন এবং দেশবাসীর জন্য হোম টাস্ক! এবার সত্যিকারের পরীক্ষার সময়ে বেপাত্তা হেডমাস্টার! যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোতে কেন্দ্রের দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনে ব্যর্থ নরেন্দ্র মোদীর সরকার।

    সবেতেই রাজনীতিতে ভুগছে মানুষ

    বাম আমল থেকেই সর্বব্যাপী রাজনীতির গ্রাসে বঙ্গভূমি। মুক্তি নেই তৃণমূল জমানাতেও। রাজনীতিতে বিরোধীর জায়গা থাকবে না? পুরো পরিসর জুড়ে থাকবে শুধুই শাসক?

    একমাত্র আমপান ঠিক,নাম নিয়ে বাকি তর্ক অর্থহীন

    একটা ঝড়ের ভিনদেশি নাম। তার উচ্চারণ নিয়ে এত তরজা? একমাত্র আমপান‌ই ঠিক, বাকিগুলো ভুল। মিডিয়ায় ঠিক ভুল যুক্তির বিচারে হোক, সংখ্যার জোরে নয়! শুধু ঝড়ের নামে নয়, সর্বর্ত্রই!

    বাংলায় আমপানের তাণ্ডব

    বাংলায় বিভিন্ন প্রান্তে আমপানের তাণ্ডবের টুকরো কিছু অংশ www.4thpillars.com এ।

    পরিযায়ী শ্রমিকের জন্য সাড়ে বারো পয়সা!

    প্রধানমন্ত্রীর ২০ লক্ষ কোটি টাকার হিসেব অর্থমন্ত্রী দিলেন সপ্তাহভর। ১০০ টাকায় পীড়িত পরিযায়ী শ্রমিকের জন্য সাড়ে বারো পয়সা, দু মাসের রেশন। গরিবের দায় ঝেড়ে ফেলে কোন সংস্কারের পথে সরকার?

    সৎ প্রচেষ্টা, শুভ হোক প্রচেষ্টা

    মাত্র ১ টাকার বিনিময়ে নিরন্ন মানুষের হাতে ব্যাগ ভরতি বাজার তুলে দিচ্ছেন ওঁরা। ১ টাকা নিচ্ছেন, যাতে দরিদ্র মানুষের আত্মসম্মানে আঘাত না লাগে। প্রচেষ্টার এই সৎ মানবিক প্রচেষ্টা চরম অর্থিক সংকটে থাকা বহু মানুষের মুখে খাবার তো জোগাচ্ছেই, সঙ্গে হাসিও ফুটিয়ে তুলছে। এই প্রচেষ্টাকে আমাদের কুর্নিশ!

    কাজের কথা নেই প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে

    অভূতপূর্ব সুযোগ পেয়েছেন নরেন্দ্র মোদী, আইনের বলে একচ্ছত্র ক্ষমতা তাঁর হাতে। কিন্তু শাসকের ভাষণে দেশের মানুষ যা নিয়ে পীড়িত, ভাবিত তার কথা নেই। এখন‌ও শুধুই বায়বীয় স্বপ্ন দেখিয়ে যাবেন নরেন্দ্র মোদী?

    রবীন্দ্রনাথের গান, সুমনের শ্রবণ

    এমনকী লকডাউনেও রবীন্দ্রনাথের গান বাদ দিয়ে বাঙালি হয় না। সঙ্গীত নিয়ে সেই মহাস্রষ্টার ভাবনা নিয়ে কতটুকু চর্চা করে বাঙালি? মনের কথা খুলে বললেন কবীর সুমন।

    করোনায় দিনযাপন পর্ব ১০

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই শিল্পীদের দিনটা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ কবি অনুব্রতা গুপ্ত-র মুখেই শুনুন তাঁর গৃহবন্দি জীবনের কথা।

    তেলা মাথায় তেল দেওয়ার সরকার

    দেড় মাস কর্মহীন অর্ধভুক্ত শ্রমিকদের জল কিনে খেতে হবে, ট্রেনের ভাড়া কেন্দ্র দেবে না। গাড়ির ক্রেতার আর্থিক ছাড়, যন্ত্রাংশ বানানোর কারিগরের রেহাই নেই। এ সরকার কার জন্য? গরিবের নয়?

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ৯

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ নবম পর্বে গায়ক দুর্নিবার সাহা-র মুখেই শুনুন তাঁর গৃহবন্দি জীবনের কথা।

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ৮

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ অষ্টম পর্বে গায়িকা সোমলতা আচার্য্য চৌধুরী-র মুখেই শুনুন তাঁর গৃহবন্দি জীবনের কথা।

    ছদ্ম বিজ্ঞান আর জাল তথ্যের‌ও মহামারী

    করোনা নিয়ে সোশাল মিডিয়ায় তথ্যের মহাপ্লাবন। খবরের নামে জালিয়াতি, তত্ত্বের নামে আধাখ্যাঁচড়া, মনগড়া যা হোক কিছু। এই ভাইরাস‌ও এক মহামারীই বটে!

    You will be missed 'Irrfan'

    13টা উল্লেখযোগ্য ইরফান খানের সংলাপ, যা মানুষকে উজ্জীবিত করে।

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ৭

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ সপ্তম পর্বে গায়িকা অঙ্কিতা ভট্টাচার্য-র মুখেই শুনুন তাঁর গৃহবন্দি জীবনের কথা।

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ৬

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ ষষ্ঠ পর্বে গায়ক ঋষি চক্রবর্তী-র মুখেই শুনুন তাঁর গৃহবন্দি জীবনের কথা।

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ৫

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ পঞ্চম পর্বে অভিনেত্রী স্নেহা চট্টোপাধ্যায়ের মুখেই শুনুন তাঁর ঘরবন্দি জীবনের কথা।

    লকডাউন ধনীর সমাধান, গরিবের নয়

    বিজ্ঞানীদের মতে লকডাউন আসল যুদ্ধের প্রস্তুতি মাত্র। সময় বার করার কৌশল। ঘরে ঘরে পরীক্ষা আর দ্রুত কোয়ারান্টাইন আসল সমাধান। নিজেদের বিজ্ঞানীদের সুপারিশ এক মাস ফেলে রেখেছিল সরকার। করোনার আসল যুদ্ধ এখন‌ও বাকি।

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ৪

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ চতুর্থ পর্বে গায়িকা লগ্নজিতা চক্রবর্তী-র মুখেই শুনুন তাঁর ঘরবন্দি জীবনের কথা।

    অবশেষে কাঙ্ক্ষিত কড়াকড়ি

    করোনা মোকাবিলায় অবশেষে কড়াকড়ির পথে পুলিশ-প্রশাসন। লকডাউনে সোশাল ডিসট্যান্সিং যাতে কঠোর ভাবে মানা হয়, তার দিকে সজাগ দৃষ্টি পুলিশের। বাজারের প্রবেশ পথে ছিল হাত ধোয়ার ব্যবস্থাও। মোটের ওপর প্রশাসনিক পদক্ষেপ নিয়ে শহর কলকাতা অখুশি নয়। তবে অনেকের মতে, এ ব্যবস্থা আরও আগে নেওয়া উচিত ছিল।

    বিপদ বাড়াচ্ছে ভয়ানক রাষ্ট্রনায়ক

    বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিধর দেশ করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত। তার নেতা ডোনাল্ড ট্রাম্পের আচরণে মানসিক ভারসাম্যের অভাব। বিপদটা তাতে বাড়ছে গোটা পৃথিবীর।

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ৩

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ তৃতীয় পর্বে গায়িকা সারণি পোদ্দার-র বাড়ির অন্দরে চোখ রাখব আমরা।

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ২

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ দ্বিতীয় পর্বে গায়ক শুভজিতের দুবাইয়ের বাড়ির অন্দরে চোখ রাখব আমরা।

    কার্ড দেখে রেশন বিলির সময় এটা নয়

    কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ান জানিয়েছেন, মজুদ খাদ্যশস্যের ভাণ্ডার সাধারণের জন্য খুলে দিতে তিনি পারছেন না। জরুরি অবস্থার জন্য অপেক্ষা করছেন তিনি। করোনার চেয়ে বেশি জরুরি অবস্থার আর কী হতে পারে? নিতান্ত গরিব পরিবার থেকে উঠে আসা পাসোয়ান কি নিজের শিকড় ভুলে গিয়েছেন?

    আগে ভাত, তারপর ভাইরাস

    আশি কোটি নিরন্ন মানুষকে খাবার জোগানোর কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। প্রত্যেকের নয় মাসের খাবার সরকারের গুদামে মজুদ। তবু কেন পেটে ভাত নেই ভারতবাসীর? জবাব চাই, খাবার চাই।

    করোনায় সেলিব্রিটি দিনযাপন পর্ব ১

    বিশ্বজুড়ে লকডাউন। সকলেই ঘরবন্দি। কিন্তু যাঁরা সারা বছর অনুষ্ঠান, শুটিং আর নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে মেতে থাকেন, কেমন কাটছে সেই সেলিব্রিটিদের রোজনামচা? আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ প্রথম পর্বে গায়ক অরিত্র দাশগুপ্ত-র বাড়ির অন্দরে চোখ রাখব আমরা।

    করোনার বিরুদ্ধে প্রত্যয়ী লড়াই ভারতাত্মার

    দেশে লকডাউন বৃদ্ধি পেল 3 মে পর্যন্ত। প্রধানমন্ত্রী আজ তাঁর ভাষণে গোটা দেশকে 'এক' বলে চিহ্নিত করলেন। 'অহম' ছেড়ে তাঁর গলায় we the people of India. দেশের কাণ্ডারীর কথায় পাওয়া গেল আশার আলো।

    করোনায় দিনযাপন পর্ব ৬

    লকডাউন মেনে বাড়ি থেকেই কাজ করছে ফোর্থ পিলার্স। কলকাতার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের চোখে কেমন সেই লকডাউন চিত্র, আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ ষষ্ঠ পর্ব।

    করোনায় দিনযাপন পর্ব ৫

    লকডাউন মেনে বাড়ি থেকেই কাজ করছে ফোর্থ পিলার্স। কলকাতার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের চোখে কেমন সেই লকডাউন চিত্র, আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ পঞ্চম পর্ব।

    এখন একটাই বিপক্ষ: করোনা

    করোনার বিরুদ্ধে লড়তে নেমেও স্বাভাবিক বিচারবুদ্ধি বিসর্জন নয়। মানুষের পাশে দাঁড়ানোই মিডিয়ার কাজ। প্রতিটি ঘটনায় আমরা-ওরা বিচার, করোনা যুদ্ধে আমদের দুর্বল করে দেবে।

    ফকিরি কেরামতির ব্যাপার নয়

    রবিবারের অকাল দীপাবলিতে কার‌ও উল্লাস, কার‌ও ক্রোধ। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইটা মন্ত্রশক্তি দিয়ে জেতা যাবে না। আজগুবি বিশ্বাস থেকেই আসে অমানবিক বর্বরতা। অত‌এব সাবধান!

    দুঃস্থদের সাহায্য শাশ্বতীর

    লক ডাউনে বহু মানুষের দু' বেলার অন্ন সংস্থান হচ্ছে না। শহর কলকাতার সহ-নাগরিক হিসাবে আপনাদের আশপাশের দুঃস্থ মানুষজনকে সাহায্য করুন, এই আবেদন করলেন শাশ্বতী চক্রবর্তী মজুমদার। তিনি নিজেও বাড়িয়ে দিলেন সাহায্যের হাত।

    করোনায় দিনযাপন পর্ব ৪

    লকডাউন মেনে বাড়ি থেকেই কাজ করছে ফোর্থ পিলার্স। কলকাতার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের চোখে কেমন সেই লকডাউন চিত্র, আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ চতুর্থ পর্ব।

    করোনায় দিনযাপন পর্ব ৩

    লকডাউন মেনে বাড়ি থেকেই কাজ করছে ফোর্থ পিলার্স। কলকাতার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের চোখে কেমন সেই লকডাউন চিত্র, আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ তৃতীয় পর্ব।

    ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ে ধর্ম আনবেন না

    মানুষ কখন প্রার্থনা করবে, তা রাষ্ট্র ঠিক করে দেবে না। এটা প্রধানমন্ত্রীর কাজ নয়। করোনা পরিস্থিতির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়ছে দেশ। তার মধ্যে প্রার্থনা এলেই ধর্ম আসবে, ধর্ম এলেই তার পিছনে রাজনীতিও আসবে। বিভাজিত ভারত দুর্বল ভারত। করোনার বিরুদ্ধে তার লড়াই হবে আরও কঠিন।

    করোনায় দিনযাপন পর্ব ২

    লকডাউন মেনে বাড়ি থেকেই কাজ করছে ফোর্থ পিলার্স। কলকাতার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের চোখে কেমন সেই লকডাউন চিত্র, আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ দ্বিতীয় পর্ব।

    করোনায় দিনযাপন পর্ব ১

    লকডাউন মেনে বাড়ি থেকেই কাজ করছে ফোর্থ পিলার্স। কলকাতার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের চোখে কেমন সেই লকডাউন চিত্র, আসুন দেখে নেওয়া যাক। আজ প্রথম পর্ব।

    অশিক্ষার ভাইরাস সহজে দূর হবে না

    ৪ ঘণ্টার নোটিসে লকডাউন গোটা দেশ। খাস রাজধানীর বুকেই আটকে পড়লেন লক্ষ লক্ষ ভিন রাজ্যের শ্রমিক। তিন সপ্তাহ তাঁরা কী খাবেন, কোথায় থাকবেন, তাঁদের চিকিৎসার কী হবে, তা ভাবেনি সরকার। এখন লোক দেখানো বদলি, প্রশাসনিক ব্যবস্থা। চরম গাফিলতির জন্যই লকডাউনের উদ্দেশ্য ব্যর্থ হতে বসেছে।

    লক্ষ লক্ষ গরিবকে পথে বসানোর ক্ষমা নেই

    কর্মহীন প্রবাসী শ্রমিকদের দুর্গতির জন্য ক্ষমা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ছাড়া অন্য কেউ হলে মানুষ বলত "হৃদয়হীন, আহাম্মক'। লকডাউনের উদ্দেশ্যকে সম্পূর্ণ নস্যাৎ করে দিল প্রবাসী শ্রমিকদের জমায়েত আর ঘরে ফেরা। দায় এড়াতে পারেন না প্রধানমন্ত্রী।

    শিল্পীর জাত তাঁর শিল্প, আর কিছু নয়

    সব লোকে কয় লালন কী জাত সংসারে। শিল্পের কি জাত হয়? আর শিল্পীর? একটা নাম, পদবি কি কারও জাত বা ধর্ম নির্ণয় করতে পারে? শিল্পী শাহাবুদ্দিনের জীবনের একটা বড় অংশ কেটেছে মহাত্মা গান্ধীর ছবি এঁকে। গান্ধীজির ছবি এঁকেই তিনি শিল্প জগতে বিরাট জায়গা করে নিয়েছেন। বহু আন্তর্জাতিক পুরস্কার পাওয়া এই শিল্পী জাত

    পৃথিবীতে ঘরবন্দি সবাই, গল্পগুলো আলাদা।

    গৃহবন্দি পৃথিবী। স্বাভাবিক জীবন থমকে গেছে। তার‌ই মধ্যে প্রত্যেকেই প্রতিনিয়ত খুঁজে নিচ্ছেন বাঁচার নতুন রসদ। বাড়িতে পড়াশোনা করে, গান শুনে, কবিতা লিখে বা অফিসের কাজ করেই কেটে যাচ্ছে করোনার বন্দিদশা।

    ভারত লড়ছে, পুলিশ লাঠি নামাক

    রাজ্যে মমতা ব্যানার্জি পথ দেখাচ্ছেন, কেন্দ্রও গরিবের জন্য খাবার, রান্নার গ্যাস, ব্যাঙ্কে কিছু টাকা দিচ্ছে। দেশ একজোট হয়ে লড়ছে। পুলিশের বাড়াবাড়ি বন্ধ হোক।

    দুষ্টের দমন, শিষ্টের পালন

    বৌদ্ধ ধর্ম প্রসারের সঙ্গে সঙ্গে, তিব্বতের বৌদ্ধমঠ গুলিতে অপেরা এবং নৃত্যনাট্য খুবই জনপ্রিয় হতে থাকে। এগুলির মূল ভাবনাই ছিল, " অশুভ শক্তির দমন এবং শুভ শক্তির জয় ।" সেই প্রথা বিস্তার লাভ করেছে পশ্চিম অরুণাচল প্রদেশের মংপা এবং শেরড্রুকপেন প্রজাতির মুখোশ নাচ হিসেবে। এই ডকুমেন্টারিতে রূপা নামে এক প্রত্

    ঘরবন্দি পৃথিবী, বিচিত্র তার কাহিনি

    এদেশ হোক বা বিদেশ। করোনায় ঘরবন্দি সকলেই। সমস্যা তো আছেই, তার সঙ্গে উঠে আসছে নতুন নিয়মের মধ্যে বাঁচার নানা গল্প। এইরকম বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা চারজনের গল্প তুলে ধরছে www.4thPillars.com .

    লকডাউন সফল করতে সরকারি সাহায্য চাই

    করোনার মোকাবিলায় একই সুর প্রধানমন্ত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রীর। লকডাউন। দেশের জন্য নিতান্তই প্রয়োজন। কিন্তু মানুষ তার জন্য সঠিক সহায়তা পাচ্ছে কি? উপদেশের সঙ্গে সেটাও চাই।

    মঞ্চে সোহিনী

    নান্দীকারের অন্যতম অভিনেত্রী ও পরিচালক সোহিনী সেনগুপ্তের মঞ্চের দৃশ্য।

    ওরা স্বপ্ন দেখে ছক ভাঙার

    ছোট বয়সেই হাতে উঠে এসেছে শিল্পদ্রব্য তৈরির নানা সরঞ্জাম। কিন্তু পেন বা বই হাত থেকে আলাদা হয়ে যায়নি। ছোট্ট চোখে ওরা স্বপ্ন দেখে আগামীর।

    এ এক অন্য বসন্ত

    পলাশ-রাঙা বসন্তে একটু অন্যরকম রঙ খেলা শহর কলকাতায়। শুধু আবিরে নয়, রঙ লাগে ক্যামেরাতেও। চকোলেট পেয়ে কচিকাঁচাদের গালেও লাগে অন্য বসন্তের লাল রঙ। এ রঙ পাকা রঙ, সহজে ওঠে না।

    মিথ্যার ভাইরাস

    করোনা ভাইরাস বিশ্বের সামনে অজানা বিপদ। একশো বছরের মধ্যে প্রথম বিশ্বব্যাপী ঘোষিত মহামারী। সুবিবেচনা, সংযম, বৈজ্ঞানিক সত্যের প্রতি বিশ্বাস প্রয়োজন।

    'কালা কানুনের' বিরুদ্ধে রিলে অনশন

    NRC-CAA-এর মতো সংবিধান বিরোধী আইন অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবিতে রিলে অনশন শুরু হল শহর কলকাতায়। দাবি পূরণ না হলে আগামী দিনে বৃহত্তর আন্দোলনের পথে কলকাতার নাগরিক সমাজ।

    অমিত শাহ বলছেন এক, করছেন আর এক

    ১ এপ্রিল শুরু হবে NPR-এর কাজ। অমিত শাহ রাজ্যসভায় বললেন, কোনও নথি লাগবে না। কাউকে সন্দেহভাজন নাগরিক মার্কা মারা হবে না। এ দিকে সরকারের রুল বুক বলছে, তথ্য যাচাই হবে, সন্দেহভাজন নাগরিক ঘোষণার ব্যবস্থাও আছে।

    চিনের ভাইরাস, ভারতের দাওয়াই

    ভাইরাস এসেছে চিন থেকে। ভারতীয় টোটকাও বেরিয়ে গেছে।

    ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ কংগ্রেস

    বিজেপির শাসনে প্রতিদিন আক্রান্ত দেশের ধর্মনিরপেক্ষ বহুত্ববাদী সত্তা। সারা দেশে একমাত্র কংগ্রেসকে কেন্দ্র করেই বিরোধী জোট সম্ভব। ছন্নছাড়া কংগ্রেস, দিশাহীন তার নেতৃত্ব। মানুষের ভরসা কোথায়?

    "আমরা কী বলব তা কেউ ঠিক করে দেবে না'

    ব্রেখট্ তাঁর 'আর্তুরো উই' নাটকে তুলে ধরেছিলেন সময়ের কিছু জরুরি কথা। স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিল সেই নাটক। ব্রেখটের সেই নাটক অবলম্বনেই পঞ্চম বৈদিকের প্রযোজনা 'ভিট্টন' মঞ্চস্থ হতে চলেছে এই সময়ে, এই শহরে। তার আগে নাটকের কিছু মুহূর্ত Making Of A Play-তে ধরা পড়ল ফোর্থ পিলার্সের ক্যামেরায়।

    "মেয়েরা বিরুদ্ধে মানে গোটা জাতি ওদের বিরুদ্ধে'

    'মায়ের অপমান করছে ওরা। ওদের পতন অবশ্যম্ভাবী...।' সাহিত্যিক-শিক্ষাবিদ আবুল বাশার এমনটাই মনে করেন। নয়া নাগরিকত্ব আইন, NRC, দিল্লির সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা নিয়ে খোলামেলা সাক্ষাৎকার দিলেন তিনি। শুনলেন সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    গানে-কবিতায় কোরাসের প্রতিবাদ

    কোরাস। সমস্বর। প্রতিবাদে এক বহু কণ্ঠ। নয়া নাগরিকত্ব বিধির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ। দেশের শাসকের বিরুদ্ধে সোচ্চার নাগরিক সমাজ। প্রতিবাদে সামিল কলকাতার শিল্পীরা। শাসককে হুঁশিয়ারি, ‘সব মনে রাখা হবে’। প্রয়াসে সামিল www.4thPillars.com

    আমি সাইক্লোনের "EYE': হিরণ মিত্র

    ক্যাওসের মধ্যে থেকে বুঝতে হবে, নগরজীবনের মধ্যে থেকে বুঝতে হবে। শান্তি নগরজীবনের মধ্যেই আছে..বাইরে প্রচুর চেঁচামেচি হচ্ছে কিন্তু তুমি শান্ত হয়ে আছ, অনেকটা সাইক্লোনের 'EYE'-এর মতো; ভিতরে শান্ত, বাইরে তাণ্ডব। -এই কথাতেই বিশ্বাস রাখেন হিরণ মিত্র।

    Kabir Suman on Today's India

    কবীর সুমনের ঘেন্না ধরে গেছে রাজনৈতিক দলগুলোর উপর। বিদ্বেষ আর হিংসার রাজনীতির বিরুদ্ধে একটা সাদা রুমাল নিয়েও তাদের কেউ পথে নামেনি। ভরসা শুধু সাধারণ মানুষ। হিজাব পরা দিদিমা থেকে সদ্য স্কুলে যাওয়া নাতনি।

    বিচার প্রক্রিয়া যেন তামাশা-প্রহসন

    ফাঁসির আদেশ দেওয়া হয়েছে অপরাধের ঘটনার ৯ মাস পর। কিন্তু তা কার্যকর করা গেল না ৭ বছরে! নির্ভয়া ধর্ষণ ও খুন মামলায় দোষীদের উকিল আইনের ফাঁকগুলি কাজে লাগিয়ে বিচারকে তামাশায়, একটা প্রহসনে পরিণত করেছেন। সুবিচারের আশায় আদালতের দিকেই তাকিয়ে গোটা দেশ।

    "কলকাতা দ্বিতীয় দিল্লি হবে না'

    রাজপথে বিরোধীদের যৌথ মিছিলে এই সব কিছুর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদের ছবি ধরা পড়ল আমাদের ক্যামেরায়। বাংলা কোন অবস্থাতেই দ্বিতীয় দিল্লি হবে না, মিছিল থেকে উঠে এল সেই প্রত্যয়ী বার্তাও।

    গুলি মারাই তা হলে এখন রাজনীতি

    বিরোধী রাজনীতি মানেই দেশদ্রোহিতা। আর দেশদ্রোহীর শাস্তির জন্য পুলিশ আদালতের দরকার নেই। নাগরিকরা যে যাকে খুশি গুলি করুক। এটাই কি আজকের রাজনীতি?

    মিটিং-মিছিলে "না’ রাজ্য পুলিশের

    সাধারণ মানুষ শান্তিপূর্ণ ভাবে প্রতিবাদ জানালেও রাজ্যের পুলিশ CAA NRC NPR বিরোধী মিছিল করতে দিচ্ছে না। বিরোধী দলগুলির কোনও মিটিং মিছিল বা বিক্ষোভ অবস্থানও লক্ষ করা যাচ্ছে না।

    বিপন্ন দেশের ২০ কোটি মুসলিম

    স্বাধীনতার ৭২ বছর পার করে আজ নতুন করে অস্তিত্বের সংকটে ভারতের মুসলমান সমাজ। দিল্লির সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সেটাই আরও একবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখাচ্ছে।আরও চিন্তার বিষয়, বিচারের পথ ক্রমশ সংকীর্ণ হচ্ছে।

    দাঙ্গার "গুজরাত মডেল’ এখন দিল্লিতে

    তিনদিন ধরে জ্বলছে দেশের রাজধানী। কোনও FIR-ই হয়নি। পুলিশ কি কারোর মাথা নাড়ার অপেক্ষায় বসেছিল, প্রশ্ন শীর্ষ আদালতের। প্রশাসনের এই নিষ্ক্রিয়তা দেখেছিল ২০০২-এর গুজরাতও।

    রাজধানী এখন "লাশধানী'

    তিনদিন ধরে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা চলছে দিল্লিতে। রাজপথে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে গৈরিক গুণ্ডাবাহিনী। পুলিশ নিষ্ক্রিয়। প্রতিবাদের স্বর শোনা যাচ্ছে দেশের অন্যত্র। আরও খবরের জন্য ক্লিক করুন: www.4thpillars.com

    দিল্লি জ্বলছে, কলকাতা ক্ষোভে ফুঁসছে

    CAA বিরোধী বিক্ষোভকারীদের রাজধানীর রাজপথে ফেলে পেটানো হচ্ছে। পুলিশ দর্শক। হামলা থেকে বাঁচতে বাড়িতে গেরুয়া কাপড় ঝুলিয়ে দিচ্ছে সাধারণ মানুষ। প্রতিবাদে গর্জে উঠল কলকাতা।

    বিচারপতির নমো স্তুতি!

    প্রধানমন্ত্রীর সামনেই প্রথা ভেঙে তাঁর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির। সরকারের বিরুদ্ধে মামলায় ন্যায়বিচার পাবে তো মানুষ?

    কৈশোরেই কাজ খোঁজে বাংলার ছেলেরা

    কন্যাশ্রীর সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন নেই। কিন্তু ছেলেরা লেখাপড়ায় পিছিয়ে কেন? পড়াশোনা ছেড়ে বাংলার কৈশোর কি কাজের সন্ধানে?

    লেখাপড়া ছেড়ে দিচ্ছে বাংলার ছেলেরা

    মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ধারাবাহিক ভাবে ১৩% বেশি মেয়ে। আর জনসংখ্যায় বেশি ছেলেরা। মাধ্যমিকের আগেই স্কুলছুট ছেলেগুলোকে নিয়ে ভাবছি কি আমরা?

    শহরের মুকুটে নতুন পালক

    দেশের আধুনিকতম মেট্রোও পেল কলকাতা - ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো। ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে জনসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হল এই মেট্রো করিডোর। যা দেখে সকলেই একবাক্যে বলছেন, একেবারে আন্তর্জাতিক মানের পরিষেবা। #KolkataMetroRailway #EastWestMetroCorridor #4thPillars #ইস্টওয়েস্টমেট্রো

    অন্য প্রেম

    নরনারীর প্রেমের উদযাপন ভ্যালেন্টাইন্স ডে-তে। ভারতীয় ভাবনায় প্রেম আরও বড়। বিশ্বসংসার ভোলানো দুটি তরুণ হৃদয়ের মিলনের আকুতি যেমন প্রেম, তেমনই মানবাত্মার সঙ্গে বিশ্বাত্মার মিলনও প্রেম। #ValentinesDay #প্রেম #4thPillars

    খোদ কলকাতায় মিলল না ঐশী-র মিছিলের অনুমতি

    বড় হোক বা ছোট, জায়গা বিশেষে সব শাসকদলই যে দিনের শেষে এক তা পরিষ্কার। জেএনইউ-তে মার খাওয়া এসএফআই নেতা ঐশী ঘোষের মিছিলের অনুমতি মিলল না কলকাতায়। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মিলল না সভার অনুমতি। #JNU #AisheGhosh #SFI #JNUSUPresident #TMCP #4thPillars

    "যারা কাজ করবে, তারাই জিতবে'

    অরবিন্দ কেজরিওয়ালের জয়ে খুশি ওঁরা। দিল্লি নির্বাচনের ফল দেশের ধর্মনিরপেক্ষ ঐতিহ্য বজায় রাখতে দীর্ঘ দিনের আন্দোলনকে আরও সবল করবে। এমনটাই মত পার্ক সার্কাসের। #DelhiVerdict #DelhiElection2020 #BJP #AamAadmiParty #ArvindKejriwal #4thPillars #AamAadmiPartyKolkata

    দিল্লির ফল নিয়ে কী ভাবছে যুবসমাজ?

    প্রত্যাশিতই ছিল। তবুও দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের ফল বহু দিক থেকে ইঙ্গিতবহ। ফল নিয়ে কী ভাবছে বাংলার যুবসমাজ? #DelhiElection2020 #DelhiVerdict #AamAadmiParty #Arvind Kejriwal #BJP #4thPillars

    হারল বিভাজনের রাজনীতি

    কাজ দেখিয়ে ভোট পেলেন কেজরিওয়াল। জনমুখী রাজনীতির এই মডেলই কি আগামী দিনের রাজনীতির ট্রেন্ড? বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক শক্তি সফল স্ট্র্যাটেজি কী হতে পারে? আলোচনায় রজত রায় এবং সুদীপ্ত সেনগুপ্ত। #BJP #AAP #AamAadmiParty #AamAadmiPartyKolkata #ArvindKejriwal #DelhiElection2020

    রুটির বদলে কেক, নিদান নির্মলার

    ষোড়ষ লুই-য়ের স্ত্রী মারি আতোঁয়ানেৎ এবং ভারতের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের মনস্তত্ত্ব কোথাও গিয়ে এক হয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতির করুণ অবস্থায় নির্মলার নিদান, শেয়ার বন্ডে বিনিয়োগ। মারি আতোঁয়ানেৎ-ও ২ শতাব্দী আগে ক্ষুধার্ত জনগণকে রুটির বদলে কেক খাওয়ার নিদান দিয়েছিলেন। ইতিহাস নিজেকে পুনরাবৃত্তি করে

    বইমেলায় বেহালার সুর

    সাউন্ড বক্সের ওপর একটি দানপাত্র রেখে মগ্ন হয়ে বেহালা বাজাচ্ছেন প্রিয়াংশু। প্রিয়াংশু কৌশিক। নিজের নিজের জগতে মগ্ন সমাজের মধ্যে প্রিয়াংশুরা আছে বলেই, এখনও অকারণেই কিছুটা হাসি হাওয়ায় ভেসে বেড়ায়। অনাথ-গরিব শিশুদের মুখে। #KolkataBookFair2020 #PriyanshuKaushik #Charity #FundRaisingForPoor #4thPill

    রঘুরাজপুরের অন্দরে

    রঘুরাজপুর। বিদেশিরা এসে গুণগান করলেও, কদর নেই এই দেশে।

    বিরোধিতা মানে শত্রুতা নয়

    চূড়ান্ত মেরুকরণ দেশের রাজনীতিতে। এক পক্ষের সমালোচনা মানেই ধরে নেওয়া হচ্ছে বিপক্ষের বন্দনা। আমরা সংশয়বাদী, তর্কশীল, কিন্তু সহিষ্ণু।

    Veiled threat of Rape?

    নিঃশব্দে একলা হাতে একটা নিরীহ পোস্টার নিয়ে নাগরিকত্ব বিধানের প্রতিবাদ করছিলেন কলেজছাত্রী সুদেষ্ণা। সমর্থকরা প্ল্যাকার্ড ছিঁড়ে ফেলার পর দিলীপ ঘোষ বললেন 'আর কিছু করা হয়নি তার চোদ্দ পুরুষের ভাগ্য ভাল।' যৌন ইঙ্গিতের অভিযোগ সুদেষ্ণার। পুলিশ কী করবে এবার?

    শহরের অচেনা 'গানওলা'

    শহরের আনাচ-কানাচে এমন বহু মানুষ রয়েছেন যাঁদের ওপর কোনও দিন স্পট লাইটের আলো পড়ে না। কিন্তু স্পটলাইটের ফোকাসে থাকার প্রতিভা তাঁদেরও রয়েছে। এমনই একজন মানুষ স্বপন সরকার। তাঁর সঙ্গেই আজ আপনাদের আলাপ করাচ্ছে ফোর্থ পিলার্স। #SwapanSarkar #FolkSinger #BengaliFolkSinger #HiddenTalent #4thPillars

    কলকাতা বইমেলা: বাঙালির চতুর্দশ পার্বন

    ২৯ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে ৪৪তম কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা। আর প্রথম উইকএন্ডে জমজমাট ভিড় মেলা প্রাঙ্গনে। বাবা মায়ের হাত ধরে হাজির খুদে বইপ্রেমীরাও। তবে মেলায় শুধু বই নয়, হাজির হরেক রকম সম্ভার। সব মিলিয়ে আপাতত চতুর্দশ পার্বনে মেতে উঠেছে কলকাতা। #KolkataBookFair2020 #4thPillars #৪৪তমকলকাতাআন্ত

    প্রতিবাদ প্রেসিডেন্সিতেও

    নাগরিকত্ব নির্ধারণের নামে সরকার যে ভাবে দেশবাসীর মধ্যে বিভাজন তৈরি করছে, তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নেমেছে ছাত্র-যুব সমাজ। বাংলা তথা দেশের অগ্রণী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ও পিছিয়ে নেই। #PresidencyUniversity #ProtestAgainstCAA #NoNRC #NoNPR #NoCAA #4thPillars

    প্রতিবাদীদের উপর সশস্ত্র হামলা, পুলিশ দর্শক

    গান্ধী হত্যার দিনই আত্মপ্রকাশ নাথুরামের উত্তরসূরী রামভক্ত গোপালের। পুলিশের সামনেই দিল্লির জামিয়া মিলিয়ায় আন্দোলনরত ছাত্রদের উপর গুলি। কলকাতায় চলছে রাজপথে প্রতিবাদ।

    থিয়েটার দেখা, থিয়েটার শেখা

    নাটক-থিয়েটার যেখানকার প্রকৃতিতে মিশে রয়েছে, সেই গোবরডাঙা এ বার পেল অভিনয় শেখার স্কুল শিল্পায়ন নাট্য বিদ্যালয়। অত্যাধুনিক মানের এই স্টুডিও থিয়েটারে কচিকাঁচা থেকে বড়রা, সকলেই নিজেদের স্বপ্ন, শখকে বাস্তবে রূপায়িত করতে পারবেন।

    শেষ দেখার পণ নিয়ে রাজপথে নারীশক্তি

    'বাপ-ঠাকুরদার জন্মও এখানে, কবরও এখানে। হিন্দুস্তানের মাটিতে মরতে চাই।' আর্জি চার রাত রাস্তায় বসে থাকা বৃদ্ধার।

    কলকাতায় কানহাইয়া

    NRC এবং CAA-র বিরুদ্ধে প্রতিবাদের অন্যতম মুখ হয়ে উঠেছেন কানহাইয়া কুমার। বৃহস্পতিবার কলকাতায় ফের একবার কেন্দ্রকে হুঁশিয়ারি কানহাইয়ার, 'তুম অগর অংরেজ বননে কি কোশিশ করোগে, তো হম সুভাষ চন্দ্র বোস বনেঙ্গে।'

    NRC: মহিলাদের সংকট হবে তীব্রতর

    মেয়েদের অস্তিত্বের সংকট, পরিচিতির সংকট, সুরক্ষার সংকট দীর্ঘদিনের। জাতীয় নাগরিকপঞ্জী আইন সেই সংকটকে যেন আরও তীব্র করে তুলেছে।

    "কালা কানুন' হঠাতে প্রাণও বাজি

    নাগরিকই যদি

    #StandWithJNU: সমাজের ধিক্কার নাগরিক মিছিলে

    বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সভায় রাস্তা পায়নি, কিন্তু নাগরিক মিছিল পথ করে দিল অ্যাম্বুলেন্সকে। তেরঙ্গার নীচেই ক্রমশ বাড়ছে আন্দোলনের তেজ। ধিক্কার দিচ্ছে সমাজের সকল শ্রেণির মানুষ।

    এক ভাষা, এক ধর্ম, এক পার্টি। এক ব্যক্তিও?

    মুখে বলা হয় এক দেশ, এক জাতি। রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বুঝিয়ে দিচ্ছেন আসল টার্গেট: এক ভাষা, এক ধর্ম, একটিই মাত্র পার্টি। তার বাইরে সব দেশদ্রোহী।

    যে আজাদি ৭৩ বছরেও মেলেনি

    চারজনে একজন নিরক্ষর, সাতজনে একজন খিদে নিয়ে শুতে যায়। অশিক্ষা, ক্ষুধা, অস্বাস্থ্য, কুসংস্কার, সামাজিক বঞ্চনা, নারী নিপীড়ন -এসবের থেকেই মুক্তি চায় সাধারণ মানুষ।

    রাজপথে দেশের বিবেক যুব ছাত্রসমাজ

    রাজনীতি চলছে তার নিজের পরিচিত চলনে। অ্যা-ও হয়, ও-ও হয়। মুখ্যমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর নানা ব্যাখ্যান। যুব ছাত্রসমাজ সোজা প্রশ্নের সোজা উত্তর চায়।

    পশ্চিমবঙ্গবাসী কিন্তু ভারতীয়ও বটে

    নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিজেপি তৃণমূল বিরোধ তুঙ্গে। বাংলা জুড়ে ধ্বনি: #GoBackModi । রাজনৈতিক বিরোধিতা কেন্দ্র-রাজ্য শত্রুতায় গিয়ে না দাঁড়ায়। তাতে কিন্তু বাঙালিরই ক্ষতি।

    জীবনে প্রথম রাস্তায়, প্রথম মিছিলে

    নয়া নাগরিকত্ব আইন জীবনে প্রথমবার রাস্তায় নামিয়েছে অনেককে। ঘরে বসে থাকলে সমস্যার সুরাহা হবে না। এই বার্তা পৌঁছে গেছে রক্ষণশীল পরিবারের অন্তঃপুরেও।

    অর্থনৈতিক মন্দা: নিঃশব্দে নামছে খাঁড়া

    দেশজুড়ে নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জী নিয়ে তোলপাড়ের মাঝেই নিঃশব্দে সকলের মাথায় নেমে আসছে আরও এক খাঁড়া। অর্থনৈতিক মন্দায় ধুঁকছে দেশের প্রায় সব বড় সংস্থা। বাড়ছে কাজ হারানোর আশঙ্কা।

    #StandWithJNU: পাশে যাদবপুর

    আক্রান্ত JNU শুধু নয়, দেশের বহুত্ববাদী ধর্মনিরপেক্ষ চরিত্রও। প্রতিবাদ দেশ জুড়ে। কলকাতায় যাদবপুরেও।

    লাঠির বাড়ি প্রশ্ন করার মাথায়

    লেখাপড়া নিয়েই যত সমস্যা! ওরা যত পড়ে, তত জানে, আর তত কম মানে। JNU শুধু নয়, আক্রমণের আসল লক্ষ মুক্তচিন্তা, প্রশ্ন করার কালচার।

    লাস্ট বয়ের থেকে তো ভাল!

    দেশের বহুত্ববাদী ধর্ম নিরপেক্ষ চরিত্র বজায় রাখার পক্ষে আন্দোলনকারীদের পাকিস্তানে যেতে বলছেন প্রধানমন্ত্রী। পাকিস্তান একটি প্রায় ব্যর্থ রাষ্ট্র। ভারতীয় গণতন্ত্রের সাফল্য বিশ্বে স্বীকৃত। লাস্ট বয়ের সঙ্গে মেধাবী ছাত্রের তুলনা কেন?

    মুসলমানের দেশ ভারত নয়?

    মুসলমান তরুণ কু-কথা বলায় তাকে দেশ থেকে বার করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন হিন্দু কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। হিন্দু তরুণ কু-কথা বললে তাকে কি প্রতিবেশী হিন্দু রাষ্ট্র নেপালে পাঠানোর হুমকি দেওয়া হবে? মন্ত্রীরাও কি ভুলে যাচ্ছেন, ভারত দেশটা ধর্ম নিরপেক্ষ?

    2020: আমার দেশ, এই সময়

    এ কোন ভারতে আছি আজ আমরা? স্বাধীনতার পর গণতন্ত্র তমসাচ্ছন্ন ছিল প্রায় ৫০ বছর আগে। সেই কথা কেন মনে পড়ছে আজ?

    2019: পাঁচটি প্রশ্নের সামনে আমরা

    বলবানের আধিপত্য, না সকলের সহাবস্থান? শুধু বাণী বিতরণ, না প্রশ্নের জবাব দেওয়া? যুক্তিবাদী ভাবনা, না অন্ধ গুরুবাদ? কোন পথে আমরা?

    মানুষের মহামিছিল

    নয়া নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার কলকাতায় মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত মিছিল। রাজনৈতিক পতাকা নেই, বড় নেতার ভাষণ নেই, সারি সারি কানফাটানো চোঙা নেই। আছে ছাত্রদের আবেগ, সহনাগরিকদের প্রতি চলমান মিছিলের সহনশীলতা।

    পুলিশ রাজের দিকে দেশ?

    রাস্তায় আলপনা দিলে পুলিশ ধরছে। মুসলিম তরুণকে দেখেই পুলিশ সুপারের হুমকি পাকিস্তান পাঠানোর। ২০১৯ কি চিহ্নিত হবে পুলিশ রাজের দিকে ভারতের যাত্রার জন্য?

    পৌষ মেলার অন্দরে...

    সদ্য শেষ হল পৌষ উৎসব। বোলপুরের রাঙামাটির গন্ধমাখা কিছু দৃশ্য রইল আপনাদের জন্য।

    রাস্তায় ছাত্রসমাজ, চিন্তায় সরকার

    শিক্ষকের ভূমিকায় সেনাপ্রধান। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসমাজকে সঠিক রাজনীতির পথ দেখাচ্ছেন জেনারেল বিপিন রাওয়াত। বিশ্ববিদ্যালয় কি সেনা ব্যারাকের গতে চলবে?

    রাজা, তোর কাপড় কোথায়?

    সবাই দেখছে যে, রাজা উলঙ্গ, তবুও সবাই হাততালি দিচ্ছে। সবাই চেঁচিয়ে বলছে; শাবাশ, শাবাশ! কারও মনে সংস্কার, কারও ভয়; কেউ-বা নিজের বুদ্ধি অন্য মানুষের কাছে বন্ধক দিয়েছে; কেউ-বা পরান্নভোজী, কেউ কৃপাপ্রার্থী, উমেদার, প্রবঞ্চক; কেউ ভাবছে, রাজবস্ত্র সত্যিই অতীব সূক্ষ্ম , চোখে পড়ছে না যদিও, তবু আছে, অন্তত

    সংসদে নথিভুক্ত দেশভাগের কাল্পনিক ইতিহাস

    দেশ ভাগের ইতিহাস মুসলিম লিগ মুক্ত করে দিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। এর পর কি একই পথে গোটা দেশ?

    অখন্ড ভারতের স্বপ্নে নাগরিকত্ব আইন

    ভারতীয় নাগরিকত্বের দাবিদার নন তসলিমা নাসরিন, দালাই লামা। তিনটি দেশ, একটি ধর্মকে টার্গেট করে আইন প্রণয়ণ এই প্রথম।

    প্রতিবাদীরাই সংখ্যাগুরু

    নাগরিকত্বের নয়া বিধানের প্রতিবাদে দেশজুড়ে রাজপথে জনতা। বিশেষ করে যুব ও ছাত্রসমাজ। মাত্র সাত মাস আগে লোকসভা ভোটে বিপুল আসন জিতেছিল বিজেপি, এনডিএ। তাহলে এত বিক্ষোভ কেন? কারণ অঙ্কের হিসেবে 30 শতাংশ ভোটারের সমর্থন পেয়েও এনডিএর এই ফল সম্ভব।

    সরকারকে বিশ্বাস করে না ছাত্রসমাজ

    স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, ভোটার কার্ড নাগরিকত্বের প্রমাণ নয়। তাহলে সেই ভোটারদের ভোটে তৈরি সরকার কী করে বৈধ হয়? এখন আবার সরকার টুইট করে নাগরিকত্বের যোগ্যতার ফিরিস্তি দিচ্ছে। অসমে এনআরসির অভিজ্ঞতা থেকে ছাত্রসমাজ বিজেপিকে বিশ্বাস করছে না। করার কারণও নেই।

    ধর্ষকের শাস্তি হল, ধর্ষণের বিচার হল না। ধর্ষিত হল রাষ্ট্রব্যবস্থা

    হিন্দি সিনেমার প্লটকেও হার মানাবে। অনেকটা কল্পকাহিনির মতোই প্রিয়াঙ্কা রেড্ডি গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় 'সুবিচার' এনে দিল পুলিশি এনকাউন্টার। এই পুলিশই ৫ ঘণ্টা নিষ্ক্রিয় ছিল ঘটনার দিন। তবে এনকাউন্টার নিয়ে বেশ উল্লসিত অনেকে। গণতন্ত্র!

    Justice For Priyanka Reddy

    নির্ভয়ার পর আইন বদলেছে, সমাজ বদলায়নি এক চুলও। প্রশ্ন উঠছে, আর কত? আরও কত প্রাণ গেলে সমাজ বদলাবে? বদলাবে দৃষ্টিভঙ্গি?

    "সরকারই এখন নাগরিকত্বের প্রমাণ চাইছে' (পর্ব ২)

    জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে শঙ্কিত গোটা দেশ। কিছু মানুষ আবার এক বিশেষ সম্প্রদায়ের মানুষকে কোণঠাসা করতে মরিয়া। তবে এরই মধ্যে সাধারণ মানুষ যে ব্যাপারটাকে গুরুত্ব দিচ্ছে না তা হল NPR. কী এই NPR? তার প্রভাব কতটা সুদূরপ্রসারী হতে পারে, সেটাই জানব এই পর্বে। আলোচনায় সাংবাদিক রজত রায় এবং সুদীপ্ত সে

    "সরকারই এখন নাগরিকত্বের প্রমাণ চাইছে' (পর্ব ১)

    অসমের পর গোটা দেশেই জাতীয় নাগরিকপঞ্জী নিয়ে ঝড় উঠেছে। তার মধ্যেই সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিলের খসড়া নতুন করে পরিস্থিতি জটিল করে তুলেছে। কেমন সেই পরিস্থিতি তা নিয়ে আলোকপাত করবেন সাংবাদিক রজত রায় এবং সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    অযোধ্যা: সমস্যার সমাধান হল, ন্যায়বিচার হল না

    অবশেষে নিষ্পত্তি অযোধ্যায় বিতর্কিত জমি মামলার। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে মিলল সমাধান সূত্র। কিন্তু ন্যায়বিচার হল কি? বিশ্লেষণে সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্ত।

    Women in Kumartuli

    Idol making in Kumartuli has been an exclusively male domain for ages. In recent years some female artists have broken through the glass ceiling. These creative women have won acclaim for their artwork from all over the world. There idols have been judged to be of superlative quality by art connoiss

    "বৃদ্ধ' হচ্ছে কুমোরটুলি

    চরম সংকটে কুমোরটুলির মৃত্শিল্প। বংশানুক্রমিক এই শিল্প থেকে মুখ ফেরাচ্ছে নতুন প্রজন্ম।

    বিজ্ঞানীর পত্নী, গুরুদেবের "বৌঠাকুরুন'

    লেডি অবলা বসু। বিশিষ্ট সমাজসংস্কারক। এ ছাড়াও তাঁর আরও একটি পরিচয় ছিল। তিনি আচার্য জগদীশচন্দ্র বসুর স্ত্রী। কবিগুরুর সঙ্গে তাঁর নিযমিত পত্র আদানপ্রদান হত। সেই চিঠিতেই জানা যায় রবীন্দ্রনাথ অবলার মধ্যে কাদম্বরীর ছায়া দেখতে পেয়েছিলেন। চিঠিগুলিই সেই সাক্ষ্য বহন করছে। দেখুন ফোর্থ পিলার্সের বিশেষ নিবে

    155th Birth Anniversary of Lady Abala Bose

    Lady Abala Bose remembered as an icon of Bengali Renaissance as well as an early feminist. Speakers : Ms. Paramita Biswas, (Founder principal, Teachers' Training Institute), Mr. Prasadranjan Ray, (President, Brahmo Sammilan Samaj)

    Kashmir 370: An Ominous sign for Indian Democracy

    A breach of fundamental trust. Breaking down of the gentleman's agreement that was the basis of accession of Jammu and Kashmir to India. Abolition of article 370 raises questions and issues ominous for a democratic united India. That's how veteran journalist Rajat Roy and Sudipta Sengupta view this

    Sudipta Sengupta on news media today

    Politics and money power have corrupted mainstream media beyond redemption. New age digital media is the solution, suggests senior journalist Sudipta Sengupta. We need a pluralist, independent and rational media.

    Rajat Roy on news media today

    Is media today capable of strengthening electoral democracy? Senior journalist Rajat Roy has severe doubts.