Support 4thPillars

×
  • আমরা
  • নজরে
  • ছবি
  • ভিডিও

  • হিমালয় উপহার দিচ্ছে প্রাচীন সব মৃতদেহ

    শুভস্মিতা কাঞ্জী | 24-12-2020

    হিমালয়ের প্রাচীন মৃতদেহ।

    বিশ্ব উষ্ণায়ন ছাড় দিল না পৃথিবীর সব থেকে উঁচু পর্বতটিকেও। এভারেস্টের বরফ গলছে দ্রুত হারে। এবং সেই গতি কতটা ভয়ঙ্কর তা বুঝিয়ে দিচ্ছে এতদিন ধরে এভারেস্টের বরফের মধ্যে জমে থাকা পর্বতারোহীদের মৃতদেহগুলি প্রকাশ্যে এসে। 

     

    হিমালয়ের হিমবাহগুলো শুধু যে দ্রুত হারে গলছে তাই নয়সরু হয়ে যাচ্ছে ক্রমশ এভারেস্টে ওঠার পথে যে খুম্বু হিমবাহ পেরিয়ে যেতে হয়তার হ্রদ আকারে ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। বরফের তাপমাত্রাও স্বাভাবিকের তুলনায় প্রায় 2 ডিগ্রি বেশি সেখানে। ফলে তা সহজেই গলে যাচ্ছে। কিন্তু বরফ গলা তো স্বাভাবিক প্রক্রিয়া, তাহলে এতে এত চিন্তার কী আছেআশুতোষ কলেজের পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক অরিজিৎ চ্যাটার্জি বলেন, ‘বরফ তো গলবেইনইলে পাহাড়ি নদীগুলো জল পাবে কোথা থেকেকিন্তু তার যে মাত্রায় গলা উচিত ছিল তার থেকে অনেক গুণ বেশিমাত্রায় বরফ গলে যাচ্ছে। শেষ 20-25 বছরে যা বরফ জমা ছিল হিমালয়েতার 25 শতাংশ গলে গিয়েছে। 2060 - 70 সালের মধ্যে অর্ধেক এবং 2100 সালের মধ্যে দুই তৃতীয়াংশ বরফ গলে যাবে বলে মনে করছে বিজ্ঞানীরা। উল্টে পাহাড়ে তুষারপাতের মাত্রা প্রায় এক চতুর্থাংশ কমে গিয়েছে। এর ফলে কী ঘটতে পারে জানতে চাইলে তিনি জানান, ‘নদীগুলো যেমন গঙ্গাব্রহ্মপুত্রইত্যাদি বন্যা ঘটাবে এক সময়। তারপর ক্রমশ পরিষ্কার জলের জোগানে ঘাটতি ঘটাতে থাকবে। এক সময় সেচ কাজ বা খাবার জন্য জল পাওয়া যাবে না। শুধু তাই নয়, জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোও ক্ষতিগ্রস্ত হবে এর ফলে। এছাড়া সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়বেযা উপকূল অঞ্চলের জন্য চিন্তার কারণ।'

     

     

     

     

    বরফ গলে আগামীদিনে কী ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি আসতে চলেছে তা তো ভবিষ্যতই বলবে। কিন্তু বর্তমানে সমস্যায় পড়েছে নেপাল এবং চিন। এখন উত্তর গোলার্ধে শীতকাল চলছেআর দুমাস বাদেই বসন্ত আসবেবরফ গলবে নতুন করে তখন সামনে আসতে থাকবে একের পর এক মৃতদেহযেমনটা শীত শুরু হওয়ার আগে হচ্ছিল। এর ফলে নেপালের পর্বতারোহী সংস্থাগুলো বিপদে পড়েছে। 

     

    এভারেস্টে উঠতে গিয়ে প্রায় 300 এরও বেশি পর্বতারোহী তাঁদের প্রাণ হারিয়েছেনএখনও 100-র বেশিমৃতদেহ সেখানেই বরফে ঢাকা পড়ে আছে। আর বর্তমান সময়ে যে ভাবে বরফ গলছে সেগুলো সামনে বেরিয়ে আসছে। চিন তাও উদ্যোগ নিয়ে কিছু মৃতদেহ সরাতে সক্ষম হয়েছেকিন্তু সমস্যায় পড়েছে নেপাল। এক একটি মৃতদেহ সরাতে প্রায় 30 থেকে 70 হাজার মার্কিন ডলার খরচ হতে পারে মনে হচ্ছে। শুধু তাই নয়অত উচ্চতা থেকে এই প্রক্রিয়া চালানো যেমন খরচসাপেক্ষ, তেমনই কষ্টসাধ্য। এরই সঙ্গেবরফের স্তর কমে আসায় সাউথ কোল এবং খুম্বু হিমবাহের দিক থেকে সব থেকে বেশি মৃতদেহ বেরিয়ে আসছে। ইদানিংকালে তো এই মৃতদেহগুলো পর্বতারোহীদের কাছে এক একটি ল্যান্ডমার্ক হয়ে উঠেছে। এই বিষয়ে অধ্যাপক অরিজিৎ চ্যাটার্জি বলেন, ‘যে মৃতদেহগুলো এতদিন বরফে ঢাকা ছিল তা বর্তমানে প্রকাশ্যে এলে পচতে শুরু করবেযা ট্রেকার্সদের পক্ষে ক্ষতিকারক। পরিবেশেরও ক্ষতি করবে।'

     

    সবটা মিলিয়ে যে এক ভয়ঙ্কর পরিবেশ এবং অবস্থা তৈরি হয়ে আছে এভারেস্টে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। একে তো তুষারপাতের তুলনায় বরফ গলার মাত্রা বেড়ে যাচ্ছে,  অন্যদিকে চিন্তা বাড়াচ্ছে মৃত পর্বতারোহীদের দেহগুলো। এখন এটাই দেখার বিষয়, চিনের মতো নেপাল সরকারও কি মৃতদেহগুলো সরানোর ব্যাপারে তৎপর হবে, নাকি তাদের প্রকৃতির কোলেই রেখে আসা হবে চিরতরেএতদিন যেমনটা ছিল। তবে সেই দৃশ্য যে পর্বতারোহীদের জন্য বিশেষ সুখকর বা আরমদায়ক নয় সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না

     

     


    শুভস্মিতা কাঞ্জী - এর অন্যান্য লেখা


    এই পরিমাণে ফার সিলের মৃত্যু পরিবেশবিদদের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

    সাম্প্রদায়িক ভেদাভেদের পাশেই সংহতি আর মানবতার উজ্জ্বল ছবি বাংলায়।

    ও সব বাবুদের রোগ, তাদের হয়। বুঝলেন?

    সিক্স সিগমা পরিচালিত ‘তাবিব, দ্য ফিজিশিয়ান’ বর্তমান সমাজের ছবি তুলে ধরেছে।

    ডেভিড এবং তাঁর স্ত্রী মানুষ করে চলেছেন ২২০জন সন্তানকে, আগলে রেখেছেন ওদের সস্নেহে।

    একটা মিষ্টি প্রেমের এবং বন্ধুত্বের গল্প ‘হাবা গোবা’।

    হিমালয় উপহার দিচ্ছে প্রাচীন সব মৃতদেহ-4thpillars