Support 4thPillars

×
  • আমরা
  • নজরে
  • ছবি
  • ভিডিও

  • কোভিড ভ্যাকসিন

    4thpillars ব্যুরো | 08-01-2021

    সাংবাদিক সুদীপ্ত সেনগুপ্তের সঙ্গে আলোচনায় চিকিৎসক কৌশিক মজুমদার, জীববিজ্ঞানী সমিত চট্টোপাধ্যায় এবং জৈবপ্রযুক্তিবিদ সুস্মিতা ঘোষ।

    অনেক প্রশ্নের জবাব না থাকা সত্ত্বেও নতুন বছরের শুরুতেই তিন তিনটি কোভিড ভ্যাকসিনে ছাড়পত্র। কেন এত তাড়াহুড়ো? এই নিয়েই 7 জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) www.4thpillars.com একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল। এই আলোচনায় সুদীপ্ত সেনগুপ্তের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন চিকিৎসক কৌশিক মজুমদার, জীববিজ্ঞানী সমিত চট্টোপাধ্যায় এবং জৈবপ্রযুক্তিবিদ সুস্মিতা ঘোষ


     

    1) সারা বিশ্বে যে ভ্যাকসিনগুলো তৈরি হয়েছে, সেগুলো মানবদেহে প্রয়োগ করলে কী প্রতিক্রিয়া হচ্ছে, সেই ধারণা আমাদের কাছে এখনও স্পষ্ট নয়। বিভিন্ন রোগের জন্য অন্যান্য যে ভ্যাকসিন আছে, সেগুলো নিলে আমরা জানি যে সেই রোগটা আর হবে না। কিন্তু করোনার ক্ষেত্রে এমন কোনও তথ্য এখনও পর্যন্ত নেই। ভ্যাকসিন নিলেই যে ব্যক্তি করোনা হওয়ার আশঙ্কামুক্ত— এটা বলার সময় এখনও আসেনি



    2) এর আগে বিশ্বে যত ভ্যাকসিন তৈরি হয়েছে, তার মধ্যে এটাই বোধহয় প্রথম, যাকে একটা অজানা রোগের বিরুদ্ধে লড়ার জন্য মাত্র 6-7 মাসে তৈরি করা হল। এক একটা রোগ এমনও আছে, যার কোনও ভ্যাকসিন এখনও তৈরি করা যায়নি। আর কোভিড ভ্যাকসিন এত দ্রুত তৈরি হয়ে গেল? একটা মারণ রোগের ভ্যাকসিনের পরীক্ষা এত কম লোকের উপর করা হল। ট্রায়ালে অংশ নেওয়া সব স্বেচ্ছাসেবকের বয়স 55 বছরের নিচে। অথচ এর থেকে বেশি বয়সীদের উপরেই করোনা বেশি প্রভাব ফেলছে। তারপর নতুন স্ট্রেন এল মাত্র এক মাস হল। কোনও পরীক্ষা ছাড়াই বলা হচ্ছে এই ভ্যাকসিন তাতেও কাজ করবে। তা কী করে সম্ভব?

    3) ভ্যাকসিনে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে মানে যে তা সবাই ব্যবহার করতে পারবে এমন নয়। যাকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে তাকে নজরে রাখা হবে। ভ্যাকসিন নেওয়ার পর আগের মতোই মাস্ক পরা, দূরত্ববিধি মানা, হাত ধোয়ার মতো অভ্যাসগুলো বজায় রাখতে হবে

    4) কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়ার আগে কোভিড টেস্ট এবং অ্যান্টিবডি টেস্ট করিয়ে নেওয়া উচিত। সেই পরীক্ষায় অজান্তেই কোভিড আক্রান্ত হওয়ার ইঙ্গিত মিললে, তৎক্ষণাৎ ভ্যাকসিন নেওয়ার প্রয়োজন নেই। সেক্ষেত্রে ব্যক্তির স্বাভাবিক প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়ে যায়। ভ্যাকসিন সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকেই আরও বাড়িয়ে তোলে

    5) ট্রায়াল না হলে আমাদের মনে যে প্রশ্নগুলো উঠছে তার সমাধান কী ভাবে সম্ভব হবে? বিশ্বে এখনও এত মানুষ করোনাক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছেন। এর স্থায়ী সমাধানের জন্য সাধারণ মানুষকেই এগিয়ে আসতে হবে। ভ্যাকসিনের ভাল খারাপ সম্পর্কিত তথ্য হাতে না এলে সাধারণ মানুষের মনে ভ্যাকসিন নিয়ে ভয় ও বিভ্রান্তি কাটবে না

    6) করোনা সবার মনেই আতঙ্ক তৈরি করেছে। তাই, সবার মনেই ভ্যাকসিন নিয়ে আশা আছে, কিন্তু সেই সঙ্গে আশঙ্কাও আছে যে, ভ্যাকসিন নিলে কী হবে?

    7) সরকার ভাবছে যারা ভ্যাকসিন বের করছে তাদের সকলের নিরাপদ ভ্যাকসিন প্রস্তুত করার ক্ষমতা আছে। সুতরাং, তারা সব দিক বিচার বিবেচনা করেই ভ্যাকসিন বের করছে। ট্রায়াল যখন করা হয়, তখন সব দিকে কভার করেই, নিয়ম মেনেই করা হয়। সুতরাং সাংঘাতিক কোনও ক্ষতির সম্ভাবনা নেই


    4thpillars ব্যুরো - এর অন্যান্য লেখা


    ধর্ষণের অপরাধ কি বিয়েতে মকুব হয়ে যায়?

    দীর্ঘ রাস্তা পেরিয়ে, মৃত জনপদ পেরিয়ে আমাদের একাকীত্ব সেও কী কম বড় প্রার্থনা! 

    কলকাতার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের চোখে কেমন লকডাউন চিত্র, আজ দেখুন দ্বিতীয় পর্ব।

    কলকাতার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের চোখে কেমন লকডাউন চিত্র, আজ দেখুন চতুর্থ পর্ব।

    লকডাউন আর আনলকের তামাশার মানেটা কী?

    আমেরিকার টেলিভিশন যে সাহস দেখাতে পারে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম কেন তা পারে না?

    কোভিড ভ্যাকসিন-4thpillars